সূরা আল-মাআরিজ‌-বাংলা উচ্চারণ-বাংলা অর্থ-Surah Al-Ma’arij

Surah Al-Ma'arij

সূরা আল-মাআরিজ‌ (আরবি ভাষায়: المعارج) পবিত্র কুরআন শরীফের ৭০ তম সূরা, এর আয়াত অর্থাৎ বাক্য সংখ্যা ৪৪ এবং রূকু তথা অনুচ্ছেদ সংখ্যা ২। সূরা আল-মাআরিজ মক্কায় অবতীর্ণ হয়েছে।

আরবি: سَأَلَ سَائِلٌ بِعَذَابٍ وَاقِعٍ
উচ্চারণ: ছাআলা ছাইলুম বি‘আযা-বিওঁ ওয়াকি‘।
একব্যক্তি চাইল, সেই আযাব সংঘটিত হোক যা অবধারিত-

READ ALSO

আরবি: لِّلْكَافِرِينَ لَيْسَ لَهُ دَافِعٌ
উচ্চারণ: লিলকা-ফিরীনা লাইছা লাহূদা-ফি‘।
কাফেরদের জন্যে, যার প্রতিরোধকারী কেউ নেই।

আরবি: مِّنَ اللَّهِ ذِي الْمَعَارِجِ
উচ্চারণ: মিনাল্লা-হি যিল মা‘আ-রিজ।
তা আসবে আল্লাহ তা’আলার পক্ষ থেকে, যিনি সমুন্নত মর্তবার অধিকারী।

আরবি: تَعْرُجُ الْمَلَائِكَةُ وَالرُّوحُ إِلَيْهِ فِي يَوْمٍ كَانَ مِقْدَارُهُ خَمْسِينَ أَلْفَ سَنَةٍ
উচ্চারণ: তা‘রুজুলমালাইকাতুওয়াররূহুইলাইহি ফী ইয়াওমিন কা-না মিকদা-রুহূখামছীনা আলফা ছানাহ।
ফেরেশতাগণ এবং রূহ আল্লাহ তা’আলার দিকে উর্ধ্বগামী হয় এমন একদিনে, যার পরিমাণ পঞ্চাশ হাজার বছর।

আরবি: فَاصْبِرْ صَبْرًا جَمِيلًا
উচ্চারণ: ফাসবির সাবরান জামীলা-।
অতএব, আপনি উত্তম সবর করুন।

আরবি: إِنَّهُمْ يَرَوْنَهُ بَعِيدًا
উচ্চারণ: ইন্নাহুম ইয়ারাওনাহূবা‘ঈদা।
তারা এই আযাবকে সুদূরপরাহত মনে করে,

আরবি: وَنَرَاهُ قَرِيبًا
উচ্চারণ: ওয়া নারা-হু কারীবা- ।
আর আমি একে আসন্ন দেখছি।

আরবি: يَوْمَ تَكُونُ السَّمَاءُ كَالْمُهْلِ
উচ্চারণ: ইয়াওমা তাকূনুছ ছামা-উ কালমুহল,।
সেদিন আকাশ হবে গলিত তামার মত।

আরবি: وَتَكُونُ الْجِبَالُ كَالْعِهْنِ
উচ্চারণ: ওয়া তাকূনুল জিবা-লুকাল‘ইহন।
এবং পর্বতসমূহ হবে রঙ্গীন পশমের মত,

আরবি: وَلَا يَسْأَلُ حَمِيمٌ حَمِيمًا
উচ্চারণ: ওয়ালা-ইয়াছআলুহামীমুন হামীমা- ।
বন্ধু বন্ধুর খবর নিবে না।

আরবি: يُبَصَّرُونَهُمْ ۚ يَوَدُّ الْمُجْرِمُ لَوْ يَفْتَدِي مِنْ عَذَابِ يَوْمِئِذٍ بِبَنِيهِ
উচ্চারণ: ইউবাসসারূনাহুম ইয়াওয়াদ্দুল মুজরিমুলাও ইয়াফতাদী মিন ‘আযা- বি ইয়াওমিইযিম ব্বিানীহ।
যদিও একে অপরকে দেখতে পাবে। সেদিন গোনাহগার ব্যক্তি পনস্বরূপ দিতে চাইবে তার সন্তান-সন্ততিকে,

আরবি: وَصَاحِبَتِهِ وَأَخِيهِ
উচ্চারণ: ওয়া সা-হিবাতিহী ওয়া আখীহ।
তার স্ত্রীকে, তার ভ্রাতাকে,

See also  তারাবির নামাজ পড়ার নিয়ম-বাংলায় নিয়ত-রাকাত-দোয়া-মোনাজাত

আরবি: وَفَصِيلَتِهِ الَّتِي تُؤْوِيهِ
উচ্চারণ: ওয়া ফাসীলাতিহিল্লাতী তু’বীহ।
তার গোষ্ঠীকে, যারা তাকে আশ্রয় দিত।

আরবি: وَمَن فِي الْأَرْضِ جَمِيعًا ثُمَّ يُنجِيهِ
উচ্চারণ: ওয়া মান ফিল আরদিজামী‘আন ছু ম্মা ইউনজীহ।
এবং পৃথিবীর সবকিছুকে, অতঃপর নিজেকে রক্ষা করতে চাইবে।

আরবি: كَلَّا ۖ إِنَّهَا لَظَىٰ
উচ্চারণ: কাল্লা- ইন্নাহা-লাজা-।
কখনই নয়। নিশ্চয় এটা লেলিহান অগ্নি।

আরবি: نَزَّاعَةً لِّلشَّوَىٰ
উচ্চারণ: নাঝঝা‘আতাল লিশশাওয়া-।
যা চামড়া তুলে দিবে।

আরবি: تَدْعُو مَنْ أَدْبَرَ وَتَوَلَّىٰ
উচ্চারণ: তাদ‘উ মান আদবারা ওয়া তাওয়াল্লা-।
সে সেই ব্যক্তিকে ডাকবে যে সত্যের প্রতি পৃষ্ঠপ্রদর্শন করেছিল ও বিমুখ হয়েছিল।

আরবি: وَجَمَعَ فَأَوْعَىٰ
উচ্চারণ: ওয়া জামা‘আ ফাআও‘আ-।
সম্পদ পুঞ্জীভূত করেছিল, অতঃপর আগলিয়ে রেখেছিল।

আরবি: إِنَّ الْإِنسَانَ خُلِقَ هَلُوعًا
উচ্চারণ: ইন্নাল ইনছা-না খুলিকা হালূ‘আ-।
মানুষ তো সৃজিত হয়েছে ভীরুরূপে।

আরবি: إِذَا مَسَّهُ الشَّرُّ جَزُوعًا
উচ্চারণ: ইযা- মাছছাহুশশাররু জাঝূ‘আ-।
যখন তাকে অনিষ্ট স্পর্শ করে, তখন সে হা-হুতাশ করে।

আরবি: وَإِذَا مَسَّهُ الْخَيْرُ مَنُوعًا
উচ্চারণ: ওয়া ইযা-মাছছাহুল খাইরু মানূ‘আ-।
আর যখন কল্যাণপ্রাপ্ত হয়, তখন কৃপণ হয়ে যায়।

আরবি: إِلَّا الْمُصَلِّينَ
উচ্চারণ: ইল্লাল মুসাল্লীন।
তবে তারা স্বতন্ত্র, যারা নামায আদায় কারী।

আরবি: الَّذِينَ هُمْ عَلَىٰ صَلَاتِهِمْ دَائِمُونَ
উচ্চারণ: আল্লাযীনা হুম ‘আলা-সালা-তিহিম দাইমূন।
যারা তাদের নামাযে সার্বক্ষণিক কায়েম থাকে।

আরবি: وَالَّذِينَ فِي أَمْوَالِهِمْ حَقٌّ مَّعْلُومٌ
উচ্চারণ: ওয়াল্লাযীনা ফীআমওয়া-লিহিম হাক্কুম মা‘লূম।
এবং যাদের ধন-সম্পদে নির্ধারিত হক আছে

আরবি: لِّلسَّائِلِ وَالْمَحْرُومِ
উচ্চারণ: লিছছাইলি ওয়াল মাহরূম।
যাঞ্ছাকারী ও বঞ্চিতের

আরবি: وَالَّذِينَ يُصَدِّقُونَ بِيَوْمِ الدِّينِ
উচ্চারণ: ওয়াল্লায়ীনা ইউসাদ্দিকূনা বিইয়াওমিদ্দীন।
এবং যারা প্রতিফল দিবসকে সত্য বলে বিশ্বাস করে।

আরবি: وَالَّذِينَ هُم مِّنْ عَذَابِ رَبِّهِم مُّشْفِقُونَ
উচ্চারণ: ওয়াল্লাযীনা হুম মিন ‘আযা-বি রাব্বিহিম মুশফিকূন।
এবং যারা তাদের পালনকর্তার শাস্তির সম্পর্কে ভীত-কম্পিত।

আরবি: إِنَّ عَذَابَ رَبِّهِمْ غَيْرُ مَأْمُونٍ
উচ্চারণ: ইন্না ‘আযা-বা রাব্বিহিম গাইরু মা’মূন।
নিশ্চয় তাদের পালনকর্তার শাস্তি থেকে নিঃশঙ্কা থাকা যায় না।

See also  সূরা আল জিন-বাংলা উচ্চারণ-বাংলা অর্থ-Surah Al-Jinn

আরবি: وَالَّذِينَ هُمْ لِفُرُوجِهِمْ حَافِظُونَ
উচ্চারণ: ওয়াল্লাযীনাহুম লিফুরূজিহিম হা-ফিজূ ন।
এবং যারা তাদের যৌন-অঙ্গকে সংযত রাখে

আরবি: إِلَّا عَلَىٰ أَزْوَاجِهِمْ أَوْ مَا مَلَكَتْ أَيْمَانُهُمْ فَإِنَّهُمْ غَيْرُ مَلُومِينَ
উচ্চারণ: ইল্লা-‘আলাআযওয়া-জিহিম আও মা-মালাকাত আইমা-নুহুম ফাইন্নাহুম গাইরু মালূমীন।
কিন্তু তাদের স্ত্রী অথবা মালিকানাভূক্ত দাসীদের বেলায় তিরস্কৃত হবে না।

আরবি: فَمَنِ ابْتَغَىٰ وَرَاءَ ذَٰلِكَ فَأُولَـٰئِكَ هُمُ الْعَادُونَ
উচ্চারণ: ফামানিবতাগা-ওয়ারা-আ যা-লিকা ফাউলাইকা হুমুল ‘আ-দূন।
অতএব, যারা এদের ছাড়া অন্যকে কামনা করে, তারাই সীমালংঘনকারী।

আরবি: وَالَّذِينَ هُمْ لِأَمَانَاتِهِمْ وَعَهْدِهِمْ رَاعُونَ
উচ্চারণ: ওয়াল্লাযীনা হুম লিআমা-না-তিহিম ওয়া ‘আহদিহিম রা-‘ঊন।
এবং যারা তাদের আমানত ও অঙ্গীকার রক্ষা করে

আরবি: وَالَّذِينَ هُم بِشَهَادَاتِهِمْ قَائِمُونَ
উচ্চারণ: ওয়াল্লাযীনা হুম বিশাহা-দা-তিহিম কাইমূন।
এবং যারা তাদের সাক্ষ্যদানে সরল-নিষ্ঠাবান

আরবি: وَالَّذِينَ هُمْ عَلَىٰ صَلَاتِهِمْ يُحَافِظُونَ
উচ্চারণ: ওয়াল্লাযীনা হুম ‘আলা-সালা-তিহিম ইউহা-ফিজূ ন।
এবং যারা তাদের নামাযে যত্নবান,

আরবি: أُولَـٰئِكَ فِي جَنَّاتٍ مُّكْرَمُونَ
উচ্চারণ: উলাইকা ফী জান্না-তিম মুকরামূন।
তারাই জান্নাতে সম্মানিত হবে।

আরবি: فَمَالِ الَّذِينَ كَفَرُوا قِبَلَكَ مُهْطِعِينَ
উচ্চারণ: ফামা-লিল্লাযীনা কাফারূ কিবালাকা মুহতি‘ঈন।
অতএব, কাফেরদের কি হল যে, তারা আপনার দিকে উর্ধ্বশ্বাসে ছুটে আসছে।

আরবি: عَنِ الْيَمِينِ وَعَنِ الشِّمَالِ عِزِينَ
উচ্চারণ: ‘আনিল ইয়ামীনি ওয়া‘আনিশশিমা-লি ‘ইঝীন।
ডান ও বামদিক থেকে দলে দলে।

আরবি: أَيَطْمَعُ كُلُّ امْرِئٍ مِّنْهُمْ أَن يُدْخَلَ جَنَّةَ نَعِيمٍ
উচ্চারণ: আইয়াতমা‘উ কুল্লুম রিইম মিনহুম আইঁ ইউদখালা জান্নাতা না‘ঈম।
তাদের প্রত্যেকেই কি আশা করে যে, তাকে নেয়ামতের জান্নাতে দাখিল করা হবে?

আরবি: كَلَّا ۖ إِنَّا خَلَقْنَاهُم مِّمَّا يَعْلَمُونَ
উচ্চারণ: কাল্লা ইন্না- খালাকনা-হুম মিম্মা-ইয়া‘লামূন।
কখনই নয়, আমি তাদেরকে এমন বস্তু দ্বারা সৃষ্টি করেছি, যা তারা জানে।

আরবি: فَلَا أُقْسِمُ بِرَبِّ الْمَشَارِقِ وَالْمَغَارِبِ إِنَّا لَقَادِرُونَ
উচ্চারণ: ফালাউকছিমুবিরাব্বিল মাশা-রিকিওয়াল মাগা-রিবি ইন্না- লাকা-দিরূন।
আমি শপথ করছি উদয়াচল ও অস্তাচলসমূহের পালনকর্তার, নিশ্চয়ই আমি সক্ষম!

See also  সূরা আল মুজাদালাহ-বাংলা উচ্চারণ-বাংলা অর্থ-Surah Al-Mujadila

আরবি: عَلَىٰ أَن نُّبَدِّلَ خَيْرًا مِّنْهُمْ وَمَا نَحْنُ بِمَسْبُوقِينَ
উচ্চারণ: ‘আলাআন নুবাদ্দিলা খাইরাম মিনহুম ওয়ামা-নাহনুবিমাছবূকীন।
তাদের পরিবর্তে উৎকৃষ্টতর মানুষ সৃষ্টি করতে এবং এটা আমার সাধ্যের অতীত নয়।

আরবি: فَذَرْهُمْ يَخُوضُوا وَيَلْعَبُوا حَتَّىٰ يُلَاقُوا يَوْمَهُمُ الَّذِي يُوعَدُونَ
উচ্চারণ: ফাযারহুম ইয়াখূদূওয়া ইয়াল‘আবূহাত্তা-ইউলা-কূইয়াওমাহুমুল্লাযী ইঊ‘আদূন।
অতএব, আপনি তাদেরকে ছেড়ে দিন, তারা বাকবিতন্ডা ও ক্রীড়া-কৌতুক করুক সেই দিবসের সম্মুখীন হওয়া পর্যন্ত, যে দিবসের ওয়াদা তাদের সাথে করা হচ্ছে।

আরবি: يَوْمَ يَخْرُجُونَ مِنَ الْأَجْدَاثِ سِرَاعًا كَأَنَّهُمْ إِلَىٰ نُصُبٍ يُوفِضُونَ
উচ্চারণ: ইয়াওমা ইয়াখরুজূনা মিনাল আজদা-ছিছিরা-‘আন কাআন্নাহুম ইলা-নুসুবিইঁ ইঊফিদূন।
সে দিন তারা কবর থেকে দ্রুতবেগে বের হবে, যেন তারা কোন এক লক্ষ্যস্থলের দিকে ছুটে যাচ্ছে।

আরবি: خَاشِعَةً أَبْصَارُهُمْ تَرْهَقُهُمْ ذِلَّةٌ ۚ ذَٰلِكَ الْيَوْمُ الَّذِي كَانُوا يُوعَدُونَ
উচ্চারণ: খা-শি‘আতান আবসা-রুহুম তারহাকুহুম যিল্লাতুন যা-লিকাল ইয়াওমুল্লাযী কা-নূ ইঊ‘আদূ ন।
তাদের দৃষ্টি থাকবে অবনমিত; তারা হবে হীনতাগ্রস্ত। এটাই সেইদিন, যার ওয়াদা তাদেরকে দেয়া হত।

Facebook
Twitter
LinkedIn

Related Posts

Related Posts

Welcome Back!

Login to your account below

Create New Account!

Fill the forms bellow to register

Retrieve your password

Please enter your username or email address to reset your password.

x

Add New Playlist

Are you sure want to unlock this post?
Unlock left : 0
Are you sure want to cancel subscription?