33 Important Composition For Class 8 With Pdf

33 Important Composition For Class 8 With Pdf

33 Important Composition For Class 8 With Pdf

33 Important Composition For Class 8 With Pdf: প্রিয় অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা, তোমাদের পরীক্ষায় কম্পোজিশন (Composition) আসবে। তোমরা যদি ইংরেজী দ্বিতীয় পেপারে ভাল নাম্বার তুলতে চাও তহলে Essay পড়তে হবে। এই আর্টিকেলে গুরুত্বপূর্ণ ৩৩টি Class-8 Essay-Composition Pdf দেয়া হলো। এখান থেকে পরীক্ষায় কমন পড়বেই।

3Science in Everyday Life/The Wonders of Modern Science/The Triumph of Science/The Blessings of Science

Introduction : We live in an age of science. We cannot think of our modern life without the blessing of science. Science has given us many things. The inventions of science have made our life easy and comfortable. It has brought the world smaller. Science has invented various things. Telephone, telegraph, wireless, mobile etc. are the recent inventions of science. With the help of these, we can communicate with others within a moment. We see the blessings of science in the field of medical, recreation, education, agriculture, transport, construction and industry etc.

READ ALSO

Science in everyday life : In city life, we enjoy mostly the gifts of science. We use computer that can do almost everything. We cannot do a single day without using mobile, computer, internet, telephone etc. The blessing of science lights up streets and houses. Cinema shows, radio, televisions, electronic fans all are gifts of science. Scientific machines and medicines purify water. Mills and factories are run with the help of science.

Medical Science : Medical science has lessened human sufferings and it has increased the joys of life. Penicillin, x-ray, biopsy, ultra sonogram, E.C.G. etc. are the wonders of modern science. Complicated medical treatment is also provided by the doctors who use scientific measures in every step of their work.

Education : In the field of education, science has widened our horizon of knowledge. We can read printed books with the help of science. Students and teachers can easily get their necessary informations searching in internet.

Agriculture : In the field of agriculture, science has invented tractors, power tillers, power pumps etc. Besides, the use of scientific measures has increased the quantity of crops. All these inventions have benefitted our farmers.

Communications : Science has added a new dimension in the case of communication system. Science has invented aeroplanes, buses, trains, steamers, rockets, launches etc. All these inventions have removed the distance of place. Thus, science has saved our valuable time. We can now travel hundreds of miles within a short time.

Negative sides : However, science is not mere blessing. Sometimes it becomes a curse. It becomes curse during war. Some destructive weapons of science are used in killing people. People also use the inventions of science in different kinds of evil purposes.

Conclusion : The inventions of science are no doubt blessing for us. It has done a lot for the development of human civilization. We are mostly dependent on the inventions of modern science in our day to day life.

দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান/আধুনিক বিজ্ঞানের বিস্ময়/বিজ্ঞানের জয়/ বিজ্ঞানের আশীর্বাদ

ভূমিকা: আমরা বিজ্ঞানের যুগে বাস করি। বিজ্ঞানের আশীর্বাদ ছাড়া আমরা আমাদের আধুনিক জীবনের কথা ভাবতে পারি না। বিজ্ঞান আমাদের অনেক কিছু দিয়েছে। বিজ্ঞানের উদ্ভাবন আমাদের জীবনকে করেছে সহজ ও আরামদায়ক। এটি পৃথিবীকে ছোট করে এনেছে। বিজ্ঞান বিভিন্ন জিনিস আবিষ্কার করেছে। টেলিফোন, টেলিগ্রাফ, ওয়ারলেস, মোবাইল ইত্যাদি বিজ্ঞানের সাম্প্রতিক আবিষ্কার। এগুলোর সাহায্যে আমরা মুহূর্তের মধ্যে অন্যদের সাথে যোগাযোগ করতে পারি। চিকিৎসা, বিনোদন, শিক্ষা, কৃষি, পরিবহন, নির্মাণ ও শিল্প ইত্যাদি ক্ষেত্রে আমরা বিজ্ঞানের আশীর্বাদ দেখতে পাই।

দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: শহরের জীবনে আমরা বেশিরভাগ বিজ্ঞানের উপহার উপভোগ করি। আমরা এমন কম্পিউটার ব্যবহার করি যা প্রায় সবকিছু করতে পারে। মোবাইল, কম্পিউটার, ইন্টারনেট, টেলিফোন ইত্যাদি ব্যবহার না করে আমরা একটি দিনও করতে পারি না। বিজ্ঞানের আশীর্বাদে রাস্তাঘাট ও বাড়িঘর আলোকিত হয়। সিনেমা শো, রেডিও, টেলিভিশন, ইলেকট্রনিক ফ্যান সবই বিজ্ঞানের উপহার। বৈজ্ঞানিক মেশিন এবং ওষুধ পানি বিশুদ্ধ করে। কল-কারখানা বিজ্ঞানের সাহায্যে পরিচালিত হয়।

চিকিৎসা বিজ্ঞান : চিকিৎসা বিজ্ঞান মানুষের কষ্ট কমিয়েছে এবং জীবনের আনন্দ বাড়িয়েছে। পেনিসিলিন, এক্স-রে, বায়োপসি, আল্ট্রা সোনোগ্রাম, ই.সি.জি. ইত্যাদি আধুনিক বিজ্ঞানের বিস্ময়। জটিল চিকিৎসা চিকিৎসাও প্রদান করেন চিকিৎসকরা যারা তাদের কাজের প্রতিটি ধাপে বৈজ্ঞানিক ব্যবস্থা ব্যবহার করেন।

শিক্ষা : শিক্ষার ক্ষেত্রে বিজ্ঞান আমাদের জ্ঞানের দিগন্তকে প্রশস্ত করেছে। আমরা বিজ্ঞানের সাহায্যে মুদ্রিত বই পড়তে পারি। শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকরা ইন্টারনেটে অনুসন্ধান করে সহজেই তাদের প্রয়োজনীয় তথ্য পেতে পারেন।

কৃষি : কৃষিক্ষেত্রে বিজ্ঞান ট্রাক্টর, পাওয়ার টিলার, পাওয়ার পাম্প ইত্যাদি উদ্ভাবন করেছে। এছাড়া বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির ব্যবহারে ফসলের পরিমাণ বেড়েছে। এই সমস্ত উদ্ভাবন আমাদের কৃষকদের উপকার করেছে।
যোগাযোগ : যোগাযোগ ব্যবস্থার ক্ষেত্রে বিজ্ঞান নতুন মাত্রা যোগ করেছে। বিজ্ঞান এরোপ্লেন, বাস, ট্রেন, স্টিমার, রকেট, লঞ্চ ইত্যাদি আবিষ্কার করেছে। এই সব আবিষ্কার স্থানের দূরত্ব দূর করেছে। এভাবে, বিজ্ঞান আমাদের মূল্যবান সময় বাঁচিয়েছে। আমরা এখন অল্প সময়ের মধ্যে শত শত মাইল ভ্রমণ করতে পারি।

নেতিবাচক দিক: যাইহোক, বিজ্ঞান নিছক আশীর্বাদ নয়। কখনও কখনও এটি একটি অভিশাপ হয়ে ওঠে। যুদ্ধের সময় এটি অভিশাপ হয়ে যায়। মানুষ হত্যায় বিজ্ঞানের কিছু ধ্বংসাত্মক অস্ত্র ব্যবহার করা হয়। মানুষ বিজ্ঞানের উদ্ভাবনকেও নানা ধরনের অসৎ উদ্দেশ্যে ব্যবহার করে।

উপসংহার: বিজ্ঞানের উদ্ভাবন নিঃসন্দেহে আমাদের জন্য আশীর্বাদ। মানব সভ্যতার বিকাশে এটি অনেক কিছু করেছে। আমরা আমাদের দৈনন্দিন জীবনে বেশিরভাগই আধুনিক বিজ্ঞানের আবিষ্কারের উপর নির্ভরশীল।

Newspapers/The role of newspaper in Modern life/Importance of Reading Newspaper/ Importance of Newspaper

Introduction : The present age is the age of newspapers. We cannot think of modern life without them. We can enrich our knowledge by reading newspapers.

Its history : The first newspaper was published in Venice. ‘The Indian Gazette’ was brought out first in our sub-continent. The ‘Somachar Darpan’ was the first Bangla newspaper.

Various kinds/types of newspapers : There are many kinds of newspapers, such as the daily, the weekly, the biweekly and the fortnightly. The daily newspapers are full of news. But the other newspapers are full of views and comments on the different news items. Some newspapers come out twice and thrice a day. Because the habit of reading the fresh news is getting more and more with the people.

Management : The newspaper has got a big staff like the editor, the new reporters and the news agents. The newspapers are printed in the printing press. The newspapers get news from the big news agencies like the Reuter, the Samachar, the Tass, the A.P etc.

Usefulness/Merits : Newspapers give news to us. We know the news of the world through the newspapers. They criticize the mistakes of the Government. They give lead to the people. People can know the new inventions and discoveries through them. Newspapers help the people know their rights and duties and their responsibilities.

Demerits : Newspapers do harm when they are edited by the bad editors. The bad editors mislead the people. They praise the bad men and blame the good men. They see all things through their own glasses on interest which helps to pollute the peaceful environment of a country. It should be stopped as early as possible.
Conclusion : Newspaper have made the world smaller. They are the mirrors of the world. We should read newspapers daily to update our knowledge.

সংবাদপত্র/আধুনিক জীবনে সংবাদপত্রের ভূমিকা/সংবাদপত্র পড়ার গুরুত্ব/সংবাদপত্রের গুরুত্ব

ভূমিকা: বর্তমান যুগ সংবাদপত্রের যুগ। আমরা তাদের ছাড়া আধুনিক জীবন ভাবতে পারি না। সংবাদপত্র পড়ে আমরা আমাদের জ্ঞানকে সমৃদ্ধ করতে পারি।

এর ইতিহাস: প্রথম সংবাদপত্র ভেনিসে প্রকাশিত হয়েছিল। ‘দ্য ইন্ডিয়ান গেজেট’ আমাদের উপমহাদেশে প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল। ‘সোমাচর দর্পণ’ প্রথম বাংলা সংবাদপত্র।

সংবাদপত্রের বিভিন্ন প্রকার/প্রকার: দৈনিক, সাপ্তাহিক, পাক্ষিক এবং পাক্ষিকের মতো অনেক ধরণের সংবাদপত্র রয়েছে। প্রতিদিনের সংবাদপত্রগুলো খবরে ভরপুর। কিন্তু অন্যান্য সংবাদপত্রের বিভিন্ন সংবাদের বিষয়ে মতামত ও মন্তব্যে ভরপুর। কিছু সংবাদপত্র দিনে দুই তিনবার বের হয়। কারণ টাটকা খবর পড়ার অভ্যাসটা মানুষের সঙ্গে দিন দিন বাড়ছে।

ব্যবস্থাপনা: পত্রিকাটি সম্পাদক, নতুন রিপোর্টার এবং নিউজ এজেন্টদের মতো একটি বড় কর্মী পেয়েছে। সংবাদপত্র ছাপা হয় ছাপাখানায়। সংবাদপত্রগুলো রয়টার, সমাচার, তাস, এপি প্রভৃতি বড় বড় সংবাদ সংস্থা থেকে খবর পায়।

উপযোগিতা/যোগ্যতা: সংবাদপত্র আমাদের খবর দেয়। আমরা সংবাদপত্রের মাধ্যমে বিশ্বের খবর জানি। তারা সরকারের ভুলের সমালোচনা করে। তারা জনগণকে নেতৃত্ব দেয়। তাদের মাধ্যমে মানুষ নতুন নতুন আবিষ্কার ও আবিষ্কার জানতে পারে। সংবাদপত্র জনগণকে তাদের অধিকার ও কর্তব্য এবং তাদের দায়িত্ব সম্পর্কে জানতে সাহায্য করে।

ক্ষতি: সংবাদপত্র খারাপ সম্পাদক দ্বারা সম্পাদনা করা হলে ক্ষতি করে। খারাপ সম্পাদকরা জনগণকে বিভ্রান্ত করে। তারা খারাপ লোকদের প্রশংসা করে এবং ভাল লোকদের দোষ দেয়। তারা স্বার্থের উপর তাদের নিজস্ব চশমা দিয়ে দেখে যা একটি দেশের শান্তিপূর্ণ পরিবেশকে দূষিত করতে সহায়তা করে। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এটি বন্ধ করা উচিত।

উপসংহার: সংবাদপত্র পৃথিবীকে ছোট করে দিয়েছে। তারা পৃথিবীর আয়না। আমাদের জ্ঞান আপডেট করার জন্য প্রতিদিন সংবাদপত্র পড়া উচিত।

Television/Uses and Abuses of Television

Introduction : Television is a wonderful invention of modern science. Probably, this is the most used scientific device of the world. Even most of the lower class families have a television set today. It can broadcast programmes in different parts of the world.

Importance/Merits/Uses : Television is an important means of communication of ideas and thoughts over the world. People from almost all sections watch television programmes. Television programmes are not only entertaining but also educative. Children learn many academic lessons from television. Even, they do not know how they are learning. Because, television programmes are funny and enjoyable. Some channels present distance learning programmes. Learners can watch and learn their lessons sitting at their homes. Farmers, aged people, sports lover have their respective programmes according to their demands. Satellite television channels are great wonders to all. Thousands of programmes of varied interests are telecast through these channels.

Demerits/Disadvantages/Abuses : Besides merits, television has some demerits too. Students as well as other people waste their valuable time in watching TV too much. Watching television is addiction to many. In America, children spend much more time in watching television than spending time in study. Moreover, our country is facing cultural assault because foreign culture is intruding into our culture. By this way western culture is affecting our young generation very much.

Conclusion : We have to take the positive things from television. Television programmes have to be educative, instructive and entertaining. Besides, controlled watching of television has to be developed. Only then television will become exactly a blessing of science.

 

টেলিভিশন/টেলিভিশনের ব্যবহার এবং অপব্যবহার

ভূমিকা: টেলিভিশন আধুনিক বিজ্ঞানের একটি বিস্ময়কর আবিষ্কার। সম্ভবত, এটি বিশ্বের সর্বাধিক ব্যবহৃত বৈজ্ঞানিক যন্ত্র। এমনকি বেশিরভাগ নিম্নবিত্ত পরিবারে আজ টেলিভিশন সেট রয়েছে। এটি বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে অনুষ্ঠান সম্প্রচার করতে পারে।

গুরুত্ব/গুণ/ব্যবহার: টেলিভিশন হল বিশ্বব্যাপী ভাবনা ও চিন্তার যোগাযোগের একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম। প্রায় সব শ্রেণীর মানুষ টেলিভিশন অনুষ্ঠান দেখে। টেলিভিশন অনুষ্ঠান শুধুমাত্র বিনোদনমূলক নয়, শিক্ষামূলকও বটে। শিশুরা টেলিভিশন থেকে অনেক একাডেমিক পাঠ শিখে। এমনকি, তারা জানে না কিভাবে তারা শিখছে। কারণ, টেলিভিশন অনুষ্ঠানগুলো মজার এবং উপভোগ্য। কিছু চ্যানেল দূরশিক্ষণ প্রোগ্রাম উপস্থাপন করে। শিক্ষার্থীরা তাদের ঘরে বসে তাদের পাঠ দেখতে এবং শিখতে পারে। কৃষক, বয়স্ক মানুষ, ক্রীড়াপ্রেমীদের চাহিদা অনুযায়ী নিজ নিজ কর্মসূচি রয়েছে। স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল সকলের কাছেই বিস্ময়কর। এসব চ্যানেলের মাধ্যমে বিভিন্ন আগ্রহের হাজার হাজার অনুষ্ঠান সম্প্রচার করা হয়।

অসুবিধা/অসুবিধা/অপব্যবহার : যোগ্যতার পাশাপাশি টেলিভিশনেরও কিছু দোষ রয়েছে। ছাত্রছাত্রীদের পাশাপাশি অন্যান্য মানুষও তাদের মূল্যবান সময় নষ্ট করে টিভি দেখে। টেলিভিশন দেখা অনেকেরই নেশা। আমেরিকায়, শিশুরা পড়াশোনায় সময় কাটানোর চেয়ে টেলিভিশন দেখতে অনেক বেশি সময় ব্যয় করে। তাছাড়া বিদেশী সংস্কৃতি আমাদের সংস্কৃতিতে অনুপ্রবেশ করায় আমাদের দেশ সাংস্কৃতিক আক্রমণের সম্মুখীন হচ্ছে। এভাবে পশ্চিমা সংস্কৃতি আমাদের তরুণ প্রজন্মকে খুব বেশি প্রভাবিত করছে।

উপসংহার: আমাদের টেলিভিশন থেকে ইতিবাচক জিনিস নিতে হবে। টেলিভিশন অনুষ্ঠান হতে হবে শিক্ষামূলক, শিক্ষামূলক এবং বিনোদনমূলক। এছাড়া নিয়ন্ত্রিতভাবে টেলিভিশন দেখার ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে। তবেই টেলিভিশন ঠিক বিজ্ঞানের আশীর্বাদ হয়ে উঠবে।

Uses & Abuses of Satellite TV

Introduction : Modern science has created wonders. Satellite TV is one of them. Now we get the opportunity to see the programmes of almost every channel of the world.

Use of satellite TV : It has both good and bad influence on our culture. Nowadays the connection of satellite TV has been given commercially. The uses of TV channels are increasing day by day. Satellite TV introduces us with the whole world. But many people think that satellite TV makes bad effect on our young generation.

Satellite channels and diversity of recreation : A Satellite channel has removed monotony of watching fixed items of programmes. In fact, today we have specialized satellite channels on almost every interest. There are some channels which broadcast only news round the clock, some only show cinemas. Some channels show games and sports only, some channels show only the discoveries and inventions of science and technology.

Abuses : For every invention, there are some demerits. Television is not free from harms. Television has great influence on young generation. They are now lured to follow other culture forgetting our own national culture. And if this is continued, our own culture and tradition will be lost. But it has some good sides too. We have to try to give up the bad influence of foreign culture.

Conclusion : Satellite TV is a part and parcel of modern science. With the help of it, we can bring cultural consciousness of the world in our home. We know, everything of the world has both good and bad effects. We have to keep the good and give up the bad.

স্যাটেলাইট টিভির ব্যবহার ও অপব্যবহার

ভূমিকা: আধুনিক বিজ্ঞান বিস্ময় সৃষ্টি করেছে। স্যাটেলাইট টিভি তার মধ্যে একটি। এখন আমরা বিশ্বের প্রায় প্রতিটি চ্যানেলের অনুষ্ঠান দেখার সুযোগ পাই।

স্যাটেলাইট টিভির ব্যবহার: এটি আমাদের সংস্কৃতিতে ভাল এবং খারাপ উভয়ই প্রভাব ফেলে। আজকাল স্যাটেলাইট টিভির সংযোগ দেওয়া হয়েছে বাণিজ্যিকভাবে। টিভি চ্যানেলের ব্যবহার দিন দিন বাড়ছে। স্যাটেলাইট টিভি আমাদের সারা বিশ্বের সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়। কিন্তু অনেকেই মনে করেন স্যাটেলাইট টিভি আমাদের তরুণ প্রজন্মের ওপর খারাপ প্রভাব ফেলে।

স্যাটেলাইট চ্যানেল এবং বিনোদনের বৈচিত্র্য: একটি স্যাটেলাইট চ্যানেল নির্দিষ্ট আইটেম অনুষ্ঠান দেখার একঘেয়েমি দূর করেছে। প্রকৃতপক্ষে, আজ আমাদের প্রায় প্রতিটি আগ্রহের উপর বিশেষায়িত স্যাটেলাইট চ্যানেল রয়েছে। কিছু চ্যানেল আছে যারা কেবলমাত্র চব্বিশ ঘন্টা সংবাদ প্রচার করে, কিছু চ্যানেল শুধুমাত্র সিনেমা দেখায়। কিছু চ্যানেল শুধুমাত্র খেলা এবং খেলাধুলা দেখায়, কিছু চ্যানেল শুধুমাত্র বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির আবিষ্কার এবং উদ্ভাবন দেখায়।

অপব্যবহার: প্রতিটি উদ্ভাবনের জন্য কিছু ত্রুটি রয়েছে। টেলিভিশন ক্ষতি থেকে মুক্ত নয়। তরুণ প্রজন্মের ওপর টেলিভিশনের ব্যাপক প্রভাব রয়েছে। তারা এখন আমাদের নিজস্ব জাতীয় সংস্কৃতি ভুলে অন্য সংস্কৃতি অনুসরণ করার প্রলোভন দেখাচ্ছে। আর এভাবে চলতে থাকলে হারিয়ে যাবে আমাদের নিজস্ব সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য। কিন্তু এর কিছু ভালো দিকও আছে। বিদেশী সংস্কৃতির কুপ্রভাব ত্যাগ করার চেষ্টা করতে হবে।

উপসংহার: স্যাটেলাইট টিভি আধুনিক বিজ্ঞানের একটি অংশ এবং পার্সেল। এর সাহায্যে আমরা আমাদের ঘরে বিশ্বের সাংস্কৃতিক চেতনা আনতে পারি। আমরা জানি, পৃথিবীর সব কিছুরই ভালো-মন্দ প্রভাব রয়েছে। আমাদের ভাল রাখতে হবে এবং খারাপকে ত্যাগ করতে হবে।

The Uses of Computer in Bangladesh

The word “computer” refers to an instrument that computes or does various calculations. Essentially a computer performs three functions. it receives data, processes data by various computations and then emits data. In a word, computer does wonders. Modern life cannot be imagined without computer. It serves man in ways that cannot be counted in Bangladesh. Computers are used in different fields successfully.

Bangladesh is an agricultural country. During the recent years, computer has been contributing a lot to our agriculture. Many hi-breed crops are being invented using the computers in Bangladesh Agriculture University.

In Bangladesh, the introduction of computer in medical science have added a new dimension. Now computers are being used to diagnose as well as for treatment of serious diseases. We cannot think of a modern operation theatre without computer.

Now a days trains and planes are run by computer. Sea-vessels are also frequently operated by computer. Besides, it is used for navigational support and for getting weather reports. Moreover, all kinds of production regarding transport can not be ensured without the help of computer.

In the publication sector of Bangladesh, the traditional type and block system has yielded to computer compose. Now, all kinds of books, newspapers, and journals brought about a revolutionary advancement in the publication sector of Bangladesh.

In the recent years, the publishing of the results of different public examinations has been computerized. As a result, it has been possible for the concerned authority to publish accurate exam results in the shortest possible time.

Almost all the private and governments offices now-a-days use computers in their day to day activities. Computer has actually become a part and parcel of all kinds of office activities.

The use of computer in Bangladesh has increased so much that it is rather easier to say where it is not used. Science is meant for the service of humanity. And infact, computer is the greatest contribution of science so far made. We just hope that it will be used for the greatest service of humanity and its misuse must be prevented.

বাংলাদেশে কম্পিউটারের ব্যবহার

“কম্পিউটার” শব্দটি এমন একটি যন্ত্রকে বোঝায় যা গণনা করে বা বিভিন্ন গণনা করে। মূলত একটি কম্পিউটার তিনটি কাজ করে। এটি ডেটা গ্রহণ করে, বিভিন্ন গণনার মাধ্যমে ডেটা প্রক্রিয়া করে এবং তারপর ডেটা নির্গত করে। এক কথায়, কম্পিউটার বিস্ময়কর কাজ করে। কম্পিউটার ছাড়া আধুনিক জীবন কল্পনা করা যায় না। এটি মানুষকে এমনভাবে সেবা করে যা বাংলাদেশে গণনা করা যায় না। কম্পিউটার বিভিন্ন ক্ষেত্রে সফলভাবে ব্যবহৃত হয়।

বাংলাদেশ একটি কৃষিপ্রধান দেশ। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে কম্পিউটার আমাদের কৃষিতে অনেক অবদান রাখছে। বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে কম্পিউটার ব্যবহার করে অনেক হাই-ব্রিড ফসল উদ্ভাবন করা হচ্ছে।

বাংলাদেশে চিকিৎসা বিজ্ঞানে কম্পিউটারের প্রচলন নতুন মাত্রা যোগ করেছে। এখন কম্পিউটার রোগ নির্ণয়ের পাশাপাশি গুরুতর রোগের চিকিৎসায় ব্যবহৃত হচ্ছে। কম্পিউটার ছাড়া আধুনিক অপারেশন থিয়েটারের কথা আমরা ভাবতে পারি না।

বর্তমানে ট্রেন ও প্লেন কম্পিউটারের মাধ্যমে চলে। সামুদ্রিক জাহাজগুলিও প্রায়শই কম্পিউটার দ্বারা পরিচালিত হয়। এছাড়াও, এটি ন্যাভিগেশনাল সাপোর্ট এবং আবহাওয়ার রিপোর্ট পাওয়ার জন্য ব্যবহার করা হয়। তাছাড়া পরিবহন সংক্রান্ত সব ধরনের উৎপাদন কম্পিউটারের সাহায্য ছাড়া নিশ্চিত করা যায় না।

বাংলাদেশের প্রকাশনা খাতে, ঐতিহ্যবাহী টাইপ এবং ব্লক সিস্টেম কম্পিউটার কম্পোজে ফল দিয়েছে। এখন, সব ধরনের বই, সংবাদপত্র, জার্নাল বাংলাদেশের প্রকাশনা খাতে বৈপ্লবিক অগ্রগতি নিয়ে এসেছে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষার ফল প্রকাশ কম্পিউটারাইজড করা হয়েছে। ফলে স্বল্পতম সময়ে পরীক্ষার সঠিক ফলাফল প্রকাশ করা সম্ভব হয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের পক্ষে।

বর্তমানে প্রায় সব বেসরকারি ও সরকারি অফিস তাদের দৈনন্দিন কাজে কম্পিউটার ব্যবহার করে। কম্পিউটার আসলে সব ধরনের অফিস কার্যক্রমের একটি অংশ এবং পার্সেল হয়ে উঠেছে।

বাংলাদেশে কম্পিউটারের ব্যবহার এতটাই বেড়েছে যে কোথায় ব্যবহার হয় না বলা বরং সহজ। বিজ্ঞান মানেই মানবতার সেবা। এবং প্রকৃতপক্ষে, কম্পিউটার এখন পর্যন্ত বিজ্ঞানের সবচেয়ে বড় অবদান। আমরা শুধু আশা করি যে এটি মানবতার সর্বশ্রেষ্ঠ সেবার জন্য ব্যবহার করা হবে এবং এর অপব্যবহার রোধ করতে হবে।

Digital Bangladesh

Digital Bangladesh means it will be an e-state, all of its activities- like governance, commerce, education, agriculture etc. will be powered by computer and internet.

Today the entire world is gradually becoming a digital planet. Almost every state is heading towards a knowledge based society. The present government is trying its best to make an ICT driven society in Bangladesh.

The government has assured to build a ‘Digital Bangladesh’ where people will get a developed life, corruption and misrule- free society, and face the challenges of the 21st century.

A very first step for ‘Digital Bangladesh’ would be to spread the ICT education throughout the country. Every primary and secondary student should have access to the computer and computer based education. Bangladesh as a country with 160 million people has huge potential, despite having many problems. It is very important to create skilled manpower educated in science and technology.

It is the expectation of the mass people that government will take all possible steps to create a SMART (Simple, Measurable, Accountable, Responsive and Transparent) ‘Digital Bangladesh’ and establish a knowledge based society within 50Years of her independence in 2021.If the leaders of our country objectively guide this generation, they can do wonder for the nation.

ডিজিটাল বাংলাদেশ

ডিজিটাল বাংলাদেশ মানে এটি একটি ই-রাষ্ট্র হবে, এর সমস্ত কার্যক্রম যেমন- শাসন, বাণিজ্য, শিক্ষা, কৃষি ইত্যাদি কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট দ্বারা চালিত হবে। আজ সমগ্র বিশ্ব ধীরে ধীরে ডিজিটাল গ্রহে পরিণত হচ্ছে। প্রায় প্রতিটি রাষ্ট্রই জ্ঞানভিত্তিক সমাজের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। বর্তমান সরকার বাংলাদেশে একটি আইসিটি চালিত সমাজ গড়তে সর্বাত্মক চেষ্টা করে যাচ্ছে।

সরকার একটি ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ গড়ার আশ্বাস দিয়েছে যেখানে মানুষ উন্নত জীবন, দুর্নীতি ও দুঃশাসনমুক্ত সমাজ পাবে এবং একবিংশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করবে।

‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’-এর জন্য প্রথম পদক্ষেপ হবে আইসিটি শিক্ষাকে সারা দেশে ছড়িয়ে দেওয়া। প্রত্যেক প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষার্থীর কম্পিউটার ও কম্পিউটার ভিত্তিক শিক্ষার সুযোগ থাকতে হবে। ১৬ কোটি জনসংখ্যার দেশ হিসেবে বাংলাদেশে অনেক সমস্যা থাকা সত্ত্বেও বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে শিক্ষিত দক্ষ জনশক্তি তৈরি করা খুবই জরুরি।

এটি গণমানুষের প্রত্যাশা যে সরকার একটি স্মার্ট (সরল, পরিমাপযোগ্য, জবাবদিহিমূলক, প্রতিক্রিয়াশীল এবং স্বচ্ছ) ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ তৈরি করতে এবং ২০২১ সালে তার স্বাধীনতার ৫০ বছরের মধ্যে একটি জ্ঞানভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার জন্য সম্ভাব্য সব পদক্ষেপ নেবে। আমাদের দেশের নেতারা এই প্রজন্মকে উদ্দেশ্যমূলকভাবে পথ দেখান, তারা জাতির জন্য বিস্ময়কর কাজ করতে পারেন।

Globalization

Globalization has become a buzzword in the new era of international politics and relations. In fact, globalization is a concept inherent in the New World after the end of the World War II by the big and powerful nations. Globalization is related to free market economy which means free movement of goods, services, people and information across the national borders. Globalization generally means the free movement of goods, services, people and information across the national border.

The idea of globalization is not new. Globalization is now on a strong foundation. In the present world, globalization has been introduced with a view to extending borderless market. It creates an integrated global economy which influences both economical and social relations among the countries of the world.

Because of globalization a country can be benefited in many ways including free market, trade, commerce, culture, employment opportunities and so many.

Mainly the developed countries are highly benefited by globalization. The globalization process in south Asia was introduced to increase economic growth, but it is a matter of sorrow that the capitalist countries are becoming richer day by day and the poor countries are becoming poorer. In this context Bangladesh is affected seriously.

However globalization can be fruitful only then when there will remain balance regarding positive activities of the countries. Globalization has both prospects and pitfalls.

If the nations of the world can create an atmosphere of co-operation, peace and solidarity, every nation can be benefited from the process of globalization. They can fight together global problems like poverty, illiteracy, aids, war and conflicts and terrorism. They can also work together in solving the problems of over-population, hunger and environmental pollution or global warming. The globe then would be a better place for everybody.

বিশ্বায়ন

আন্তর্জাতিক রাজনীতি ও সম্পর্কের নতুন যুগে বিশ্বায়ন একটি গুঞ্জন হয়ে উঠেছে। প্রকৃতপক্ষে, বিশ্বায়ন হল বড় এবং শক্তিশালী দেশগুলির দ্বারা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সমাপ্তির পর নতুন বিশ্বে অন্তর্নিহিত একটি ধারণা।
বিশ্বায়ন মুক্ত বাজার অর্থনীতির সাথে সম্পর্কিত যার অর্থ জাতীয় সীমানা জুড়ে পণ্য, পরিষেবা, মানুষ এবং তথ্যের অবাধ চলাচল। বিশ্বায়নের অর্থ সাধারণত জাতীয় সীমান্ত জুড়ে পণ্য, পরিষেবা, মানুষ এবং তথ্যের অবাধ চলাচল।

বিশ্বায়নের ধারণা নতুন নয়। বিশ্বায়ন এখন মজবুত ভিত্তির ওপর দাঁড়িয়ে আছে। বর্তমান বিশ্বে সীমাহীন বাজার সম্প্রসারণের লক্ষ্যে বিশ্বায়ন চালু হয়েছে। এটি একটি সমন্বিত বিশ্ব অর্থনীতি তৈরি করে যা বিশ্বের দেশগুলির মধ্যে অর্থনৈতিক এবং সামাজিক সম্পর্ক উভয়কেই প্রভাবিত করে।

বিশ্বায়নের কারণে একটি দেশ মুক্তবাজার, ব্যবসা-বাণিজ্য, সংস্কৃতি, কর্মসংস্থানের সুযোগসহ নানাভাবে উপকৃত হতে পারে।

বিশ্বায়নের দ্বারা প্রধানত উন্নত দেশগুলি অত্যন্ত উপকৃত হয়। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বাড়াতে দক্ষিণ এশিয়ায় বিশ্বায়ন প্রক্রিয়া চালু করা হয়েছিল, কিন্তু দুঃখের বিষয় যে পুঁজিবাদী দেশগুলো দিন দিন ধনী হচ্ছে আর দরিদ্র দেশগুলো আরও দরিদ্র হচ্ছে। এ প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

তবে বিশ্বায়ন তখনই ফলপ্রসূ হতে পারে যখন দেশগুলোর ইতিবাচক কর্মকাণ্ডে ভারসাম্য বজায় থাকবে। বিশ্বায়নের সম্ভাবনা এবং ক্ষতি উভয়ই রয়েছে।

বিশ্বের জাতিগুলো যদি সহযোগিতা, শান্তি ও সংহতির পরিবেশ সৃষ্টি করতে পারে তাহলে বিশ্বায়নের প্রক্রিয়া থেকে প্রতিটি জাতি উপকৃত হতে পারে। তারা একসাথে দারিদ্র্য, নিরক্ষরতা, সাহায্য, যুদ্ধ এবং সংঘাত এবং সন্ত্রাসবাদের মতো বৈশ্বিক সমস্যাগুলির সাথে লড়াই করতে পারে। অতিরিক্ত জনসংখ্যা, ক্ষুধা ও পরিবেশ দূষণ বা গ্লোবাল ওয়ার্মিং সমস্যা সমাধানেও তারা একসঙ্গে কাজ করতে পারে। পৃথিবী তখন সবার জন্য ভালো জায়গা হবে।

 

Student Life/The Duties of a Student

Introduction : There are different stages of human life. Student life is one of them. This time is spent for earning knowledge and education. In this period, students prepare themselves for future stages of life. So, student life is called the seed time of future life. Besides study, students have some extra-curricular and social activities.

First and foremost duty : The first and foremost duty of students is to study. Leaving study, students should not engage in other activities. At first, they must complete their class syllabus. Extra class work in everyday routine should be done regularly. For this, they have to be punctual, well-disciplined and devoted to study. Next, they can read other books like novel, poetry, essay, short story and newspapers for extra knowledge.

Value of time : Proper use of time is essential for students. If they waste time, they will not be able to reach their goal. They must know that success depends on the proper use of time. They should realize that lost time can never be regained. Even, they should spend their leisure time in a fruitful way.

Other activities : After keeping their study well, students may indulge in other extra-curricular and social activities. They should participate in games and sports. Physical exercise is necessary for them. Without a good health, their education might be a failure. They should come forward to help the affected people during flood, cyclone, etc. They also can literate the illiterate people.

Conclusion : Students should have their aims. They will be the leaders of their nation in future and run their country. So, they should prepare themselves well so that their nation can be benefited by them.

ছাত্র জীবন/ একজন ছাত্রের কর্তব্য

ভূমিকা: মানুষের জীবনের বিভিন্ন স্তর রয়েছে। ছাত্রজীবন তার মধ্যে অন্যতম। এই সময় ব্যয় করা হয় জ্ঞান অর্জন এবং শিক্ষা অর্জনের জন্য। এই সময়ের মধ্যে শিক্ষার্থীরা জীবনের ভবিষ্যত পর্যায়ের জন্য নিজেদের প্রস্তুত করে। তাই ছাত্রজীবনকে ভবিষ্যৎ জীবনের বীজ সময় বলা হয়। অধ্যয়নের পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের কিছু পাঠ্যক্রম বহির্ভূত এবং সামাজিক কার্যক্রম রয়েছে।

প্রথম এবং প্রধান কর্তব্য: ছাত্রদের প্রথম এবং প্রধান কর্তব্য হল পড়াশুনা করা। পড়ালেখা বাদ দিয়ে শিক্ষার্থীদের অন্য কাজে ব্যস্ত হওয়া উচিত নয়। প্রথমে তাদের ক্লাসের সিলেবাস শেষ করতে হবে। প্রতিদিনের রুটিনে অতিরিক্ত ক্লাসের কাজ নিয়মিত করতে হবে। এর জন্য তাদের সময়ানুবর্তিতা, সুশৃঙ্খল এবং পড়াশোনায় নিষ্ঠাবান হতে হবে। পরবর্তী, তারা অতিরিক্ত জ্ঞানের জন্য উপন্যাস, কবিতা, প্রবন্ধ, ছোট গল্প এবং সংবাদপত্রের মতো অন্যান্য বই পড়তে পারে।

সময়ের মূল্য: শিক্ষার্থীদের জন্য সময়ের সঠিক ব্যবহার অপরিহার্য। সময় নষ্ট করলে তারা তাদের লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবে না। তাদের অবশ্যই জানা উচিত সময়ের সঠিক ব্যবহারের উপর সাফল্য নির্ভর করে। তাদের বোঝা উচিত যে হারানো সময় আর ফিরে পাওয়া যায় না। এমনকি, তাদের অবসর সময়টা ফলপ্রসূভাবে কাটানো উচিত।

অন্যান্য ক্রিয়াকলাপ : তাদের পড়াশুনা ভালো রাখার পর, শিক্ষার্থীরা অন্যান্য পাঠ্যক্রম বহির্ভূত এবং সামাজিক কর্মকাণ্ডে লিপ্ত হতে পারে। তাদের খেলাধুলায় অংশগ্রহণ করা উচিত। তাদের জন্য শারীরিক ব্যায়াম প্রয়োজন। সুস্বাস্থ্য না থাকলে তাদের শিক্ষা ব্যর্থ হতে পারে। বন্যা, ঘূর্ণিঝড় ইত্যাদির সময় ক্ষতিগ্রস্থ মানুষদের সাহায্যে এগিয়ে আসা উচিত।

উপসংহার: শিক্ষার্থীদের তাদের লক্ষ্য থাকতে হবে। তারা ভবিষ্যতে তাদের জাতির নেতা হবে এবং তাদের দেশ পরিচালনা করবে। সুতরাং, তাদের উচিত নিজেদেরকে ভালোভাবে প্রস্তুত করা যাতে তাদের দ্বারা তাদের জাতি উপকৃত হয়।

Physical Exercise

Introduction : Physical exercise means the regular movement of the limbs of our body for blood circulation and activeness of body and mind. To keep our body and mind fit, physical exercise is obviously required. A tool made of iron is spoilt by rust if we do not use it for a long time. In the similar way, a body without necessary movement becomes weak. Diseases can easily attack an idle man. Indeed, it is natural that life is not static rather dynamic.

Different kinds/forms of physical exercise : There are many kinds of physical exercise. Walking, swimming, running etc. are good forms of exercise. Walking is suitable for the men of all ages but swimming are appropriate for tender-age. All games and sports are good physical exercises. Football, Cricket, Ha-du-du, Kanamachi are some of common games which are really good as physical exercise. Gymnastics are also great exercise but not suitable for all. Meditation is also a kind of exercise but it only benefits our mind and soul.

Importance : Healthy people are required for the development of a country. A jolly mind takes shelter in healthy body. And to keep good health physical exercise is essential. So, directly or indirectly physical exercise helps develop a resourceful nation. Health is not a gift of chance. We have to acquire it. Here lies the importance of physical exercise.

Conclusion : We have to follow the rules of exercise. Punctuality and regularity are the prerequisite of physical exercise. Irregular exercise or over exercise may have negative impacts on health. We should be careful about taking food. Without balanced diet, physical exercise may not work. It is unwise to take exercise with an empty stomach. So we, all should take physical exercise to enjoy a sound health.

শরীর চর্চা

ভূমিকা: শারীরিক ব্যায়াম বলতে রক্ত সঞ্চালন এবং শরীর ও মনের সক্রিয়তার জন্য আমাদের শরীরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের নিয়মিত নড়াচড়া করাকে বোঝায়। আমাদের শরীর ও মন ফিট রাখার জন্য অবশ্যই শারীরিক ব্যায়াম প্রয়োজন। লোহার তৈরি একটি হাতিয়ার মরিচা পড়ে নষ্ট হয়ে যায় যদি আমরা এটি দীর্ঘদিন ব্যবহার না করি। একইভাবে, প্রয়োজনীয় নড়াচড়া ছাড়া একটি শরীর দুর্বল হয়ে পড়ে। অলস মানুষকে রোগ সহজেই আক্রমণ করতে পারে। প্রকৃতপক্ষে, এটা স্বাভাবিক যে জীবন স্থির নয় বরং গতিশীল।

শারীরিক ব্যায়ামের বিভিন্ন ধরনের/ফর্ম: অনেক ধরনের শারীরিক ব্যায়াম আছে। হাঁটা, সাঁতার, দৌড় ইত্যাদি ব্যায়ামের ভালো রূপ। হাঁটা সব বয়সের পুরুষদের জন্য উপযুক্ত কিন্তু সাঁতার কাটা কোমল বয়সের জন্য উপযুক্ত। সমস্ত খেলা এবং খেলাধুলা ভাল শারীরিক ব্যায়াম। ফুটবল, ক্রিকেট, হা-ডু-ডু, কানামাছি এমন কিছু সাধারণ খেলা যা শারীরিক ব্যায়ামের মতো সত্যিই ভালো। জিমন্যাস্টিকসও দুর্দান্ত ব্যায়াম কিন্তু সবার জন্য উপযুক্ত নয়। ধ্যানও এক ধরনের ব্যায়াম কিন্তু এটি শুধুমাত্র আমাদের মন ও আত্মার উপকার করে।

গুরুত্ব: একটি দেশের উন্নয়নের জন্য সুস্থ মানুষ প্রয়োজন। একটি প্রফুল্ল মন সুস্থ শরীরে আশ্রয় নেয়। আর স্বাস্থ্য ভালো রাখতে শারীরিক ব্যায়াম অপরিহার্য। তাই প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে শারীরিক ব্যায়াম একটি সম্পদশালী জাতি গড়ে তুলতে সাহায্য করে। স্বাস্থ্য সুযোগের উপহার নয়। আমাদের এটি অর্জন করতে হবে। এখানে শারীরিক ব্যায়ামের গুরুত্ব রয়েছে।

See also  Completing Story class-8: A Liar Shepherd

উপসংহার: আমাদের ব্যায়ামের নিয়ম মেনে চলতে হবে। সময়ানুবর্তিতা এবং নিয়মিততা শারীরিক ব্যায়ামের পূর্বশর্ত। অনিয়মিত ব্যায়াম বা অতিরিক্ত ব্যায়াম স্বাস্থ্যের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। খাবার গ্রহণে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। সুষম খাদ্য ছাড়া, শারীরিক ব্যায়াম কাজ নাও হতে পারে। খালি পেটে ব্যায়াম করা বোকামি। তাই সুস্থ স্বাস্থ্য উপভোগ করার জন্য আমাদের সকলেরই শারীরিক ব্যায়াম করা উচিত।

Value of Time

Introduction : The value of time in our life in this world knows no bounds. Life is short but art is long. If we do not make the best use of time it is not possible for us to complete these works.

Value of time : Time is the most valuable asset in the world. Time never stays for anybody. It just goes on and on. ÒTime and tide Wait for noneÓ is a valuable proverb.

Proper use of time : Our life is nothing but the collection of some moments. For the proper use of time we should have a time table. We should follow the routine for the proper use of time. Our daily work should be centered round the routine.

Importance : Waste of time is a crime. Those who waste time can never make progress in life. Time once lost is lost forever. We are born for a short span of life. But we have to do many things in life. A punctual man may shine in life.

Value of time in idle life : Only the idle sit idly and make no attempt to do a work which they must do. They meet failure in life and suffer in the end. They cannot even earn their livelihood. They are the burdens of a country. Everybody hates them.

Value of time in student life : student life is the seed time of life. Student who does not know the value of time can never be successful.

Conclusion : We are the supreme creation of Allah. So we should not waste our time. The proper use of time is the key to success in life. So we should use the time properly.

সময়ের মূল্য

ভূমিকা: এই পৃথিবীতে আমাদের জীবনে সময়ের মূল্য কোন সীমা জানে না। জীবন ছোট কিন্তু শিল্প দীর্ঘ। সময়ের সদ্ব্যবহার না করলে এই কাজগুলো সম্পন্ন করা আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়।

সময়ের মূল্য: সময় পৃথিবীর সবচেয়ে মূল্যবান সম্পদ। সময় কখনো কারো জন্য থাকে না। এটি শুধু চলতেই থাকে। ÒTime and tide Wait for noneÓ একটি মূল্যবান প্রবাদ।

সময়ের সঠিক ব্যবহারঃ আমাদের জীবন কিছু মুহুর্তের সংগ্রহ ছাড়া আর কিছুই নয়। সময়ের সঠিক ব্যবহারের জন্য আমাদের একটি টাইম টেবিল থাকা উচিত। সময়ের সঠিক ব্যবহারের জন্য আমাদের রুটিন মেনে চলা উচিত। আমাদের দৈনন্দিন কাজ রুটিন বৃত্তাকার কেন্দ্রীভূত করা উচিত.

গুরুত্বঃ সময় নষ্ট করা অপরাধ। যারা সময় নষ্ট করে তারা জীবনে উন্নতি করতে পারে না। একবার হারিয়ে যাওয়া সময় চিরতরে হারিয়ে যায়। আমাদের জন্ম অল্প সময়ের জন্য। কিন্তু জীবনে অনেক কিছুই করতে হয়। একজন সময়নিষ্ঠ মানুষ জীবনে উজ্জ্বল হতে পারে।

নিষ্ক্রিয় জীবনে সময়ের মূল্য: কেবল অলস ব্যক্তিরা অলসভাবে বসে থাকে এবং তাদের অবশ্যই একটি কাজ করার চেষ্টা করে না। তারা জীবনে ব্যর্থতার মুখোমুখি হন এবং শেষ পর্যন্ত ভোগেন। এমনকি তারা জীবিকা নির্বাহ করতে পারে না। তারা দেশের বোঝা। সবাই তাদের ঘৃণা করে।

ছাত্রজীবনে সময়ের মূল্য: ছাত্রজীবন হলো জীবনের বীজ সময়। যে ছাত্র সময়ের মূল্য জানে না সে কখনই সফল হতে পারে না।

উপসংহারঃ আমরা আল্লাহর সর্বশ্রেষ্ঠ সৃষ্টি। তাই আমাদের সময় নষ্ট করা উচিত নয়। সময়ের সঠিক ব্যবহারই জীবনের সফলতার চাবিকাঠি। তাই সময়কে সঠিকভাবে কাজে লাগাতে হবে।

Discipline

Introduction : Discipline means obedience to certain rules and regulations which are essential for the maintenance of law, order, justice and punishment. Man lives in a society. He is to live with others and obey discipline for maintaining peace in the society.

Importance of discipline : Everything within the universe is conducted by discipline. Breach of discipline brings downfall. If every man does as he likes, there will be chaos in the society. So, the importance of discipline is very great. We should follow discipline to be successful in the battle of life.

Discipline in the army : Discipline is very essential in the army. Everyone in the army has to lead a strictly disciplined life. A small group of military is more capable to win a battle than a large group of military which suffers from lack of discipline.

Discipline in student life : Discipline is necessary in student life. By learning discipline, a student can be a successful citizen in future. The student who learn discipline from their early life can tackle any problem in his future life.

Discipline in the institutions : The institution that follows discipline runs well. But it fails when it is without discipline. A good institution follows rules and regulations strictly.

Discipline in the planets : The planets move in discipline. As a result, there is no possibility of clash and conflict among them. Thus discipline can be learnt from the disciplined movement of the planets.

Key to prosperity : Discipline brings success for one who follows it. The great men of the world followed discipline strictly. They never did anything against rules and regulations. We should follow their life style to be successful in life.

Conclusion : Discipline is development. Discipline draws a sharp line of distinction between men and beasts. So, we should be careful of the importance of discipline in our life.

শৃঙ্খলা

ভূমিকা: শৃঙ্খলা মানে আইন, শৃঙ্খলা, ন্যায়বিচার এবং শাস্তির রক্ষণাবেক্ষণের জন্য প্রয়োজনীয় কিছু নিয়ম ও প্রবিধানের আনুগত্য। মানুষ সমাজে বাস করে। তাকে অন্যের সাথে বসবাস করতে হবে এবং সমাজে শান্তি বজায় রাখার জন্য শৃঙ্খলা মেনে চলতে হবে।

শৃঙ্খলার গুরুত্বঃ মহাবিশ্বের সবকিছুই শৃঙ্খলা দ্বারা পরিচালিত হয়। শৃঙ্খলা ভঙ্গ পতন ডেকে আনে। প্রতিটি মানুষ যদি তার পছন্দ মতো কাজ করে তাহলে সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হবে। তাই, শৃঙ্খলার গুরুত্ব অনেক বেশি। জীবন যুদ্ধে সফল হতে হলে শৃঙ্খলা মেনে চলতে হবে।

সেনাবাহিনীতে শৃঙ্খলা: সেনাবাহিনীতে শৃঙ্খলা খুবই প্রয়োজনীয়। সেনাবাহিনীর সবাইকে কঠোরভাবে শৃঙ্খলাবদ্ধ জীবনযাপন করতে হবে। সামরিক বাহিনীর একটি ছোট দল শৃঙ্খলার অভাবে ভুগছে এমন একটি বৃহৎ গোষ্ঠীর তুলনায় যুদ্ধে জয়ী হতে বেশি সক্ষম।

ছাত্রজীবনে শৃঙ্খলা : ছাত্রজীবনে নিয়মানুবর্তিতা আবশ্যক। শৃঙ্খলা শেখার মাধ্যমে একজন শিক্ষার্থী ভবিষ্যতে একজন সফল নাগরিক হতে পারে। যে শিক্ষার্থী প্রাথমিক জীবন থেকে শৃঙ্খলা শেখে সে তার ভবিষ্যত জীবনে যেকোনো সমস্যা মোকাবেলা করতে পারে।

প্রতিষ্ঠানে শৃঙ্খলা: যে প্রতিষ্ঠান শৃঙ্খলা মেনে চলে তারা ভালোভাবে চলে। কিন্তু এটি ব্যর্থ হয় যখন এটি শৃঙ্খলা ছাড়া হয়। একটি ভাল প্রতিষ্ঠান নিয়ম-কানুন কঠোরভাবে অনুসরণ করে।

গ্রহগুলিতে শৃঙ্খলা : গ্রহগুলি শৃঙ্খলায় চলে। ফলে তাদের মধ্যে সংঘর্ষ ও সংঘর্ষের কোনো সম্ভাবনা নেই। এভাবে গ্রহের সুশৃঙ্খল গতিবিধি থেকে শৃঙ্খলা শেখা যায়।

সমৃদ্ধির চাবিকাঠি: শৃঙ্খলা যে এটি অনুসরণ করে তার জন্য সাফল্য নিয়ে আসে। পৃথিবীর মহাপুরুষেরা কঠোরভাবে অনুশাসন পালন করতেন। তারা কখনোই নিয়ম-নীতির বিরুদ্ধে কিছু করেনি। জীবনে সফল হতে আমাদের উচিত তাদের জীবনধারা অনুসরণ করা।

উপসংহার: শৃঙ্খলাই উন্নয়ন। শৃঙ্খলা পুরুষ এবং পশুদের মধ্যে পার্থক্যের একটি তীক্ষ্ণ রেখা আঁকে। সুতরাং, আমাদের জীবনে শৃঙ্খলার গুরুত্ব সম্পর্কে আমাদের সতর্ক হওয়া উচিত।

Female education

Introduction : Education is a crying need to all. Woman is one half of our total population. If womenfolk remains illiterate, no nation development can be done. So female education is a must in our country at present.

Necessity : Without the help and whole-hearted co-operation of woman the nation cannot progress. In practical life the role of woman is not of less importance than that of the guardian of the family. “The hand that flocks the cradle rules the world,”-is a maxim. A woman rears the infants, builds up them as a worthy citizen and leader. Woman also play and important role in the economic field. So to manage the family in a decent way a man depends on his wife. A housewife performs her household affairs, keeps poultry and thus helps the family economically.

Importance : Our prophet Hazrat Muhammad (sm.) laid great importance on the education of both male and female. Without education a woman cannot do anything properly for her children and also cannot help them to lead a worthy life.

Obstacles : Some orthodox people speak against female education and create obstacle to it. Infact, it is an offence. We must educate women in nursing, household, management, child-care, sewing and so on. Thus, they will be able to earn their living independently.

Conclusion : Female education is a vital need to our developing Bangladesh. So we should be up and doing for the spread of female education side by side with men.

নারী শিক্ষা

ভূমিকা: শিক্ষা সবার জন্য একটি কান্নার প্রয়োজন। নারী আমাদের মোট জনসংখ্যার অর্ধেক। নারীরা নিরক্ষর থাকলে দেশের কোনো উন্নয়ন হবে না। তাই বর্তমানে আমাদের দেশে নারী শিক্ষা অপরিহার্য।

প্রয়োজন : নারীর সাহায্য ও আন্তরিক সহযোগিতা ছাড়া জাতি অগ্রসর হতে পারে না। বাস্তব জীবনে নারীর ভূমিকা পরিবারের অভিভাবকের চেয়ে কম গুরুত্বপূর্ণ নয়। “যে হাত দোলনা চালায় সেই হাতই বিশ্বকে শাসন করে” – একটি ম্যাক্সিম। একজন মহিলা শিশুকে লালন-পালন করেন, তাদের একজন যোগ্য নাগরিক এবং নেতা হিসাবে গড়ে তোলেন। অর্থনৈতিক ক্ষেত্রেও মহিলারা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তাই পরিবার পরিচালনা করতে একটি শালীন উপায় একজন পুরুষ তার স্ত্রীর উপর নির্ভর করে।

গুরুত্ব : আমাদের নবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) নারী ও পুরুষ উভয়ের শিক্ষার ওপর অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়েছেন। শিক্ষা ব্যতীত একজন নারী তার সন্তানদের জন্য সঠিকভাবে কিছু করতে পারে না এবং তাদের একটি যোগ্য জীবনযাপনে সহায়তা করতে পারে না।

বাধা: কিছু গোঁড়া লোক নারী শিক্ষার বিরুদ্ধে কথা বলে এবং তাতে বাধা সৃষ্টি করে। আসলে, এটি একটি অপরাধ। আমাদের অবশ্যই নারীদের নার্সিং, গৃহস্থালি, ব্যবস্থাপনা, শিশু যত্ন, সেলাই ইত্যাদি বিষয়ে শিক্ষিত করতে হবে। এভাবে তারা স্বাধীনভাবে জীবিকা নির্বাহ করতে পারবে।

উপসংহার: আমাদের উন্নয়নশীল বাংলাদেশের জন্য নারী শিক্ষা একটি অত্যাবশ্যকীয় প্রয়োজন। তাই নারী শিক্ষার প্রসারে পুরুষের পাশাপাশি আমাদেরও এগিয়ে আসা উচিত।

Drug Abuse

Drug Abuse is one of the banes of modern society. It has hit all regions and all sections of our society. It is found in rural and urban areas, among poor and the rich, among the men and women. But it is most overwhelmingly practiced by young boys and girls in hostels in almost all educational and technical institution.
Drug abuse is there in almost all the countries of the world.

India is more vehemently a transit country as it is situated between the Golden Triangle comprising Thailand, Myanmar and Cambodia and Golden Crescent comprising Pakistan, Afghanistan and Iran where most of the drugs, particularly opium and heroin are produced. Pakistan is the main centre of the world as far as the production of these drugs is concerned, and a large number of drugs pass through India to reach other countries.

This takes place through drug mafia who has further links with formidable terrorists and smugglers. And in the process, many young man and women in our own country too fall victims to this diabolical habit. Pakistan, through its ISI, is indulging in a proxy war in Kashmir against India with the help of money earned through this drug mafia. Thus drugs and terrorism have very strong links.

The habit becomes so confirmed that the victim becomes a slave to the drug. If he or she doesn’t take it regularly, he or she feels something missing and even greatly depressed with acute pain and numbness in legs and arms. Drugs are of many kinds like opium, heroin, ganja, charas etc.
There are also some injections which induce intense drowsiness. If a drug-addict is unable to get the required drug at the proper time, he or she would be ready to get it at any cost even by selling out his or her shirt or shoes.

He or she may consume large quantities of cough syrups and the like which induce drowsiness. Withdrawal symptoms are acute and serious. A lot of money is involved in drugs. For instance, one kg. Of heroin is valued at 1-crore rupees in the international market. That is why the drug mafia is so active.
The government has opened certain drug de-addiction centers where the drug-addicts should be taken at the earliest before then- condition becomes horrible which may finally prove fatal.

ওষুধের অপব্যবহার

মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার আধুনিক সমাজের অন্যতম ব্যাধি। এটি আমাদের সমাজের সমস্ত অঞ্চল এবং সমস্ত অংশকে আঘাত করেছে। এটি গ্রামীণ ও শহরাঞ্চলে, দরিদ্র ও ধনী, পুরুষ ও মহিলাদের মধ্যে পাওয়া যায়। কিন্তু প্রায় সব শিক্ষা ও কারিগরি প্রতিষ্ঠানের হোস্টেলে অল্পবয়সী ছেলে-মেয়েরা এটি সবচেয়ে বেশি করে। বিশ্বের প্রায় সব দেশেই মাদকের অপব্যবহার রয়েছে।

ভারত আরও তীব্রভাবে একটি ট্রানজিট দেশ কারণ এটি থাইল্যান্ড, মায়ানমার এবং কম্বোডিয়া নিয়ে গঠিত গোল্ডেন ট্রায়াঙ্গেল এবং পাকিস্তান, আফগানিস্তান এবং ইরান নিয়ে গঠিত গোল্ডেন ক্রিসেন্টের মধ্যে অবস্থিত যেখানে বেশিরভাগ মাদক, বিশেষ করে আফিম এবং হেরোইন উৎপাদিত হয়। এই ওষুধের উৎপাদনের ক্ষেত্রে পাকিস্তান বিশ্বের প্রধান কেন্দ্র, এবং বিপুল সংখ্যক মাদক ভারত হয়ে অন্য দেশে পৌঁছায়।

এটি ড্রাগ মাফিয়াদের মাধ্যমে সংঘটিত হয় যাদের আরও শক্তিশালী সন্ত্রাসী এবং চোরাকারবারিদের সাথে আরও যোগ রয়েছে। আর এই প্রক্রিয়ায় আমাদের দেশের অনেক যুবক-যুবতীও এই শয়তানি অভ্যাসের শিকার হয়। পাকিস্তান তার আইএসআই এর মাধ্যমে এই ড্রাগ মাফিয়ার মাধ্যমে অর্জিত অর্থের সাহায্যে ভারতের বিরুদ্ধে কাশ্মীরে প্রক্সি যুদ্ধে লিপ্ত হচ্ছে। তাই মাদক ও সন্ত্রাসবাদের খুব শক্তিশালী সম্পর্ক রয়েছে।

অভ্যাস এতটাই নিশ্চিত হয়ে যায় যে শিকার হয়ে যায় মাদকের দাস। যদি তিনি নিয়মিত এটি গ্রহণ না করেন, তবে তিনি বা তিনি কিছু অনুপস্থিত বোধ করেন এবং এমনকি তীব্র ব্যথা এবং পায়ে এবং বাহুতে অসাড়তা সহ খুব বিষণ্নতা অনুভব করেন। মাদক অনেক ধরনের হয় যেমন আফিম, হেরোইন, গাঁজা, চরস ইত্যাদি।
এছাড়াও কিছু ইনজেকশন রয়েছে যা তীব্র তন্দ্রাকে প্ররোচিত করে। একজন মাদকাসক্ত যদি সঠিক সময়ে প্রয়োজনীয় মাদক পেতে অক্ষম হয়, তবে সে তার শার্ট বা জুতা বিক্রি করেও যেকোনো মূল্যে এটি পেতে প্রস্তুত থাকবে।

তিনি বা তিনি প্রচুর পরিমাণে কাশির সিরাপ খেতে পারেন এবং এর মতো যা তন্দ্রাকে প্ররোচিত করে। প্রত্যাহারের লক্ষণগুলি তীব্র এবং গুরুতর। অনেক টাকা মাদকের সাথে জড়িত। উদাহরণস্বরূপ, এক কেজি। আন্তর্জাতিক বাজারে হেরোইনের মূল্য ১ কোটি টাকা। এ কারণে মাদক মাফিয়ারা এত সক্রিয়।
সরকার কতিপয় মাদকাসক্তি মুক্ত কেন্দ্র খুলেছে যেখানে মাদকাসক্তদের দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে পরিস্থিতি ভয়াবহ হওয়ার আগেই যা শেষ পর্যন্ত মারাত্মক হতে পারে।

Acid Throwing

Introduction : Acid throwing is a serious crime. It is one of the most heinous activities in our country. Now a days it is going to be out of control.

Cause of acid throwing : Almost every day we find the news of acid throwing in all the newspaper of our country. In our male led society it is seen that women and children are the worst victims of acid throwing. This incident takes place due to many reasons. One is family enmity and another one is the rejection of love. If two families fall into enmity on different issues, often one of them through acid on the women and children of the opponent side. Again, if any youth is rejected in his love by the girl he loves, he also may throw acid on the girl.

Effect of acid throwing : The effect of acid throwing is dangerous. Our government should take punitive action against the acid throwers. Acid throwing damages not only a person’s body or face, but it destroys his or her dream, a possibility and a life.

Remedies : Understanding the psychology of an acid thrower is important to prevent this crime. An acid thrower should be made to realize that he himself can be victim of acid violence and in that case his own life would be unbearable to himself. The acid criminal should be boycotted socially and brought to exemplary punishment. Mass media can play a vital role in this respect by publishing regular features and broadcasting various programmes. Social vigilance and familial watch can prevent this crime to a great extent.

Conclusion : It is hopeful that different private organization, women’s organizations and NGOs have come forward to prevent acid violence and raise awareness among people. As a result the case rate is decreasing. Guardians, parents and influential persons can play important roles in solving the feuds and quarrels before the incident actually happens.

এসিড নিক্ষেপ

ভূমিকা: এসিড নিক্ষেপ একটি গুরুতর অপরাধ। এটা আমাদের দেশের সবচেয়ে জঘন্য কাজগুলোর একটি। এখন একদিন তা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে।

এসিড নিক্ষেপের কারণ: প্রায় প্রতিদিনই আমরা দেশের সব পত্রিকায় এসিড নিক্ষেপের খবর পাই। আমাদের পুরুষ নেতৃত্বাধীন সমাজে দেখা যায় নারী ও শিশুরা এসিড নিক্ষেপের সবচেয়ে বেশি শিকার। অনেক কারণে এই ঘটনা ঘটে। একটি হল পারিবারিক শত্রুতা এবং আরেকটি হল প্রেম প্রত্যাখ্যান। বিভিন্ন ইস্যুতে দুই পরিবারে শত্রুতা হলে প্রায়ই একজন প্রতিপক্ষের নারী-শিশুদের ওপর এসিড মারেন। আবার, কোন যুবক যদি তার প্রেমে প্রত্যাখ্যাত হয় যে মেয়েটিকে সে ভালবাসে, সে মেয়েটির উপরও এসিড নিক্ষেপ করতে পারে।

অ্যাসিড নিক্ষেপের প্রভাব: অ্যাসিড নিক্ষেপের প্রভাব বিপজ্জনক। আমাদের সরকারের উচিত এসিড নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া। অ্যাসিড নিক্ষেপ শুধুমাত্র একজন ব্যক্তির শরীর বা মুখের ক্ষতি করে না, এটি তার স্বপ্ন, একটি সম্ভাবনা এবং একটি জীবনকে ধ্বংস করে।

প্রতিকার : এসিড নিক্ষেপকারীর মনস্তত্ত্ব বোঝা এই অপরাধ প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ। একজন এসিড নিক্ষেপকারীকে উপলব্ধি করা উচিত যে সে নিজেও এসিড সহিংসতার শিকার হতে পারে এবং সেক্ষেত্রে তার নিজের জীবন তার নিজের কাছে অসহনীয় হবে। এসিড অপরাধীকে সামাজিকভাবে বয়কট করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনতে হবে। নিয়মিত ফিচার প্রকাশ এবং বিভিন্ন অনুষ্ঠান সম্প্রচারের মাধ্যমে গণমাধ্যম এক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। সামাজিক সতর্কতা এবং পারিবারিক নজরদারি এই অপরাধ অনেকাংশে প্রতিরোধ করতে পারে।

উপসংহার: এটা আশাব্যঞ্জক যে বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা, মহিলা সংস্থা এবং এনজিও অ্যাসিড সহিংসতা প্রতিরোধে এবং মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে এগিয়ে এসেছে। ফলে মামলার হার কমছে। অভিভাবক, অভিভাবক এবং প্রভাবশালী ব্যক্তিরা ঘটনাটি ঘটার আগেই কলহ ও ঝগড়া নিরসনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেন।

Unemployment problem

Introduction : Unemployment problem is the burning question of Bangladesh. It can be termed as number one problem of the country.

Growth rate : Bangladesh is a small country. But her population in not few. About sixteen crores of people live in this country. Most of them are poor. They live from hand to month. The population of our country is increasing at an alarming rate. The present growth rate of population in Bangladesh is 2.36%. The problem is now out of control.

Unemployment problem : Unemployment problem is very acute in our country. For one single vacant post there will be thousand of candidates. The production of food can not keep pace with our increasing population. As a result there us shortage of food in our country. People are fighting very hard against hunger and poverty.

Effects : Unemployment problem has become a common problem in day to life. It is going out of control day by day. It creates other problems too. It loses not only our life but also progress. The people have to suffer a lot.

How to solve this problem : We should come forward to control our population. Education must be ensured for all. The people of our country must be made conscious through education.

Man is the make : Man is the maker of his own fate. If we are idle we can not be prosperous. Some people think that the success in life depends on fortune. But it is not true. Hard labors are essential for success in every sphere of life. Industry is the key to success.

Conclusion : Human life is very short. But there are a lot of things to do. That is why, we have to do many things within a short time. So, every moment of life should be utilized properly.

বেকার সমস্যা

ভূমিকা: বেকার সমস্যা বাংলাদেশের জ্বলন্ত প্রশ্ন। এটাকে দেশের এক নম্বর সমস্যা বলা যেতে পারে।

প্রবৃদ্ধির হার: বাংলাদেশ একটি ছোট দেশ। কিন্তু তার জনসংখ্যা কম নয়। এদেশে প্রায় ষোল কোটি মানুষের বাস। তাদের অধিকাংশই দরিদ্র। তারা হাত থেকে মাসে বেঁচে থাকে। আমাদের দেশের জনসংখ্যা উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে। বাংলাদেশে বর্তমানে জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ২.৩৬%। সমস্যা এখন নিয়ন্ত্রণের বাইরে।

বেকার সমস্যা: আমাদের দেশে বেকার সমস্যা খুবই তীব্র। একটি মাত্র শূন্য পদের জন্য হাজার হাজার প্রার্থী থাকবেন। খাদ্য উৎপাদন আমাদের ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার সাথে তাল মিলিয়ে চলতে পারে না। ফলে দেশে খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে। মানুষ ক্ষুধা ও দারিদ্র্যের বিরুদ্ধে কঠিন লড়াই করছে।

প্রভাব: বেকারত্ব সমস্যা দৈনন্দিন জীবনে একটি সাধারণ সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। দিন দিন নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে। এটি অন্যান্য সমস্যাও তৈরি করে। এটি কেবল আমাদের জীবনই নয়, উন্নতিও হারায়। এতে জনগণকে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

এই সমস্যা কিভাবে সমাধান করা যায়: আমাদের জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে এগিয়ে আসা উচিত। সবার জন্য শিক্ষা নিশ্চিত করতে হবে। শিক্ষার মাধ্যমে আমাদের দেশের মানুষকে সচেতন করতে হবে।

মানুষই তৈরি : মানুষ তার নিজের ভাগ্যের নির্মাতা। অলস থাকলে আমরা সমৃদ্ধ হতে পারব না। কিছু মানুষ মনে করেন যে জীবনের সাফল্য ভাগ্যের উপর নির্ভর করে। কিন্তু এটি সত্যি না। জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে সাফল্যের জন্য কঠোর পরিশ্রম অপরিহার্য। শিল্প সাফল্যের চাবিকাঠি।

উপসংহার: মানুষের জীবন খুবই সংক্ষিপ্ত। কিন্তু অনেক কিছু করার আছে। এজন্য অল্প সময়ের মধ্যেই আমাদের অনেক কাজ করতে হয়। তাই জীবনের প্রতিটি মুহূর্তকে সঠিকভাবে কাজে লাগাতে হবে।

Population Problem in Bangladesh/Population Explosion in Bangladesh

As a developing country, Bangladesh has so many problems and crises. Population problem is one of the most serious problems among them. It hampers the development of our country.

Undoubtedly Bangladesh is a densely populated small country. Her area is about 55,598 square miles. In this small area, she contains more than 160 million people. The rate of density is about 2,698 per square miles which is absolutely surprising and every day the rate is increasing.

So, It becomes very difficult for Bangladesh to provide her citizens food, clothing, housing, communication, medical service, employment, education and all other fundamental demands. Bangladesh mostly depends on agriculture for her economy. She has very few mineral products.

She is not self-sufficient in food. She is not industrially developed. So, she is not able to export her industrial or agricultural products. Besides she is to face natural calamities every now and then. So, Bangladesh is to import many necessary things every year. Increasing population keeps so much pressure on the economic development of Bangladesh.

Over population is creating so many problems. Poverty, hunger, malnutrition, diseases, restlessness, disorder, illiteracy, backwardness, unemployment, frustrations are on the increase for over population. In brief, over population has become a national problem of Bangladesh. So, it is high time we took necessary steps for population control.

To control population, we have to go to our village at first. About eighty percent people live in villages. They are illiterate. They do not realize the importance of family planning. They do not know how to control population. Religious misinterpretations interrupt them to adopt family planning. So, we have to raise consciousness among the village people.

Recently, Bangladesh Government has taken some necessary steps to control population. Besides, different electronic media are presenting cautionary programmes regarding the solution of the population problem of Bangladesh. We can hope that we will be successful in population control in near future.

বাংলাদেশে জনসংখ্যা সমস্যা/বাংলাদেশে জনসংখ্যা বিস্ফোরণ

উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে বাংলাদেশে অনেক সমস্যা ও সংকট রয়েছে। তাদের মধ্যে জনসংখ্যা সমস্যা অন্যতম গুরুতর সমস্যা। এতে আমাদের দেশের উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

নিঃসন্দেহে বাংলাদেশ একটি ঘনবসতিপূর্ণ ছোট দেশ। তার এলাকা প্রায় ৫৫,৫৯৮ বর্গ মাইল। এই ছোট এলাকায়, তিনি ১৬০ মিলিয়নেরও বেশি মানুষ ধারণ করেন। ঘনত্বের হার প্রায় ২৬৯৮ প্রতি বর্গ মাইল যা একেবারে আশ্চর্যজনক এবং প্রতিদিন এই হার বাড়ছে।

সুতরাং, বাংলাদেশের জন্য তার নাগরিকদের খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, যোগাযোগ, চিকিৎসা সেবা, কর্মসংস্থান, শিক্ষা এবং অন্যান্য মৌলিক চাহিদা প্রদান করা খুবই কঠিন হয়ে পড়ে। বাংলাদেশ তার অর্থনীতির জন্য বেশিরভাগই কৃষির উপর নির্ভরশীল। তার খুব কম খনিজ পণ্য আছে।

তিনি খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ নন। সে শিল্পগতভাবে উন্নত নয়। তাই তিনি তার শিল্প বা কৃষিপণ্য রপ্তানি করতে পারছেন না। এছাড়া তাকে প্রতিনিয়ত প্রাকৃতিক দুর্যোগের মুখোমুখি হতে হয়। তাই বাংলাদেশকে প্রতিবছর অনেক প্রয়োজনীয় জিনিস আমদানি করতে হয়। ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যা বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের উপর এত চাপ রাখে।

অতিরিক্ত জনসংখ্যা অনেক সমস্যার সৃষ্টি করছে। দারিদ্র্য, ক্ষুধা, অপুষ্টি, রোগ, অস্থিরতা, বিশৃঙ্খলা, অশিক্ষা, অনগ্রসরতা, বেকারত্ব, হতাশা বৃদ্ধি পাচ্ছে জনসংখ্যার অধিক। সংক্ষেপে, অতিরিক্ত জনসংখ্যা বাংলাদেশের জাতীয় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার সময় এসেছে।

জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ করতে হলে প্রথমে আমাদের গ্রামে যেতে হবে। প্রায় আশি শতাংশ মানুষ গ্রামে বাস করে। তারা অশিক্ষিত। তারা পরিবার পরিকল্পনার গুরুত্ব উপলব্ধি করে না। তারা জানে না কিভাবে জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ করতে হয়। ধর্মীয় ভুল ব্যাখ্যা তাদের পরিবার পরিকল্পনা গ্রহণে বাধা দেয়। তাই গ্রামের মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে হবে।

সম্প্রতি বাংলাদেশ সরকার জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে কিছু প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছে। এছাড়া বাংলাদেশের জনসংখ্যা সমস্যার সমাধানে বিভিন্ন ইলেকট্রনিক মিডিয়া সতর্কতামূলক কর্মসূচি উপস্থাপন করছে। আমরা আশা করতে পারি যে আমরা অদূর ভবিষ্যতে জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে সফল হব।

A Journey by Train/A Journey You Have Recently Enjoyed/My Experience of a Journey by Train

Introduction : Human life is dynamic and so it needs movement. A scheduled circular life is always boring. Journey is an important element to make our life enjoyable. I like journey and train journey is always pleasant to me. It gives me much pleasure. So whenever I get time and chance, I go out to enjoy train journey.

Occasion : I got a nice chance of a train journey last summer vacation. I have a friend in Rangpur. He invited me to pass the summer vacation with him there. I could not but agree with him. I accepted the invitation gladly. My uncle agreed to accompany me.

Description : In the first morning of my last summer vacation, I along with my uncle started for Rangpur from Komlapur Railway Station. We got on a second class compartment. It was almost packed up. Many passengers were standing. Fortunately, we got two seats beside a window.

When the guard blew his whistle, the train started. Within half an hour our train passed the city area and continued to move through green vegetation. I looked through a window. It seemed to me that trees, houses and all other things flew away very fast. The green fields were passing swiftly.

Our train stopped at few stations. Among them the important stations were Bogra and Gaibandha. I was astonished to see the crowd at those stations. From every station some hawkers entered our train with different kinds of items like chocolates, battle leaf, potato crackers, ice-cream, cucumbers, guavas, pens, pencils, children books etc. We saw many beggars and disabled persons in the stations. Seeing many sights and sceneries and gathering new experiences, we reached Rangpur in the evening.

Conclusion : My friend Rony with his brothers and cousins were waiting eagerly for me. Their joys knew no bounds when they saw me. Thus my journey came to an end. The memory of the journey will remain ever fresh in my mind.

ট্রেনে ভ্রমণ/একটি যাত্রা যা আপনি সম্প্রতি উপভোগ করেছেন/ট্রেনে ভ্রমণে আমার অভিজ্ঞতা

ভূমিকা: মানুষের জীবন গতিশীল তাই এর গতিশীলতা প্রয়োজন। একটি নির্ধারিত বৃত্তাকার জীবন সবসময় বিরক্তিকর। আমাদের জীবনকে আনন্দময় করার জন্য যাত্রা একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। আমি ভ্রমণ পছন্দ করি এবং ট্রেন ভ্রমণ আমার কাছে সবসময়ই আনন্দদায়ক। এটা আমাকে অনেক আনন্দ দেয়। তাই যখনই সময় ও সুযোগ পাই, ট্রেন ভ্রমণ উপভোগ করতে বেরিয়ে পড়ি।

উপলক্ষ্য: আমি গত গ্রীষ্মের ছুটিতে ট্রেন ভ্রমণের একটি সুন্দর সুযোগ পেয়েছি। রংপুরে আমার এক বন্ধু আছে। তিনি আমাকে সেখানে তার সাথে গ্রীষ্মের ছুটি কাটাতে আমন্ত্রণ জানান। আমি তার সাথে একমত হতে পারলাম না। আমি সানন্দে আমন্ত্রণ গ্রহণ করলাম। আমার চাচা আমাকে সঙ্গ দিতে রাজি হলেন।

বর্ণনা: আমার গত গ্রীষ্মের ছুটির প্রথম সকালে, আমি আমার মামার সাথে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে রংপুরের উদ্দেশ্যে যাত্রা করি। আমরা দ্বিতীয় শ্রেণীর বগিতে উঠলাম। এটা প্রায় বস্তাবন্দী ছিল. অনেক যাত্রী দাঁড়িয়ে ছিলেন। ভাগ্যক্রমে, আমরা একটি জানালার পাশে দুটি আসন পেয়েছি।

গার্ড যখন হুইসেল বাজালো, তখন ট্রেন চলতে শুরু করলো। আধঘণ্টার মধ্যে আমাদের ট্রেন শহরের এলাকা পেরিয়ে সবুজ গাছপালা দিয়ে চলতে থাকল। একটা জানালা দিয়ে দেখলাম। আমার কাছে মনে হয়েছিল যে গাছ, বাড়ি এবং অন্যান্য সমস্ত জিনিস খুব দ্রুত উড়ে গেছে। সবুজ মাঠগুলো দ্রুত চলে যাচ্ছিল।

আমাদের ট্রেন কয়েকটি স্টেশনে থামল। এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ স্টেশন ছিল বগুড়া ও গাইবান্ধা। ওই স্টেশনগুলোতে ভিড় দেখে আমি অবাক হয়ে গিয়েছিলাম। প্রতিটি স্টেশন থেকে কিছু হকার আমাদের ট্রেনে চকলেট, যুদ্ধের পাতা, আলুর পটকা, আইসক্রিম, শসা, পেয়ারা, কলম, পেন্সিল, শিশুদের বই ইত্যাদি নিয়ে আমাদের ট্রেনে প্রবেশ করেছিল। অনেক দর্শনীয় স্থান ও দৃশ্য দেখে এবং নতুন অভিজ্ঞতা কুড়িয়ে সন্ধ্যায় আমরা রংপুরে পৌছালাম।

উপসংহার: আমার বন্ধু রনি তার ভাই ও কাজিনদের সাথে আমার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছিল। আমাকে দেখে তাদের আনন্দের সীমা ছিল না। এভাবে আমার যাত্রা শেষ হলো। ভ্রমণের স্মৃতি আমার মনে চিরতর তাজা থাকবে।

A Journey by Boat

Introduction: A journey by boat is very pleasant as well as interesting. At the same time it is something like a thrilling adventure to man living in a city. Pent up in a noisy and crowded city like Dhaka, I naturally jumped at the suggestion of some of my friends contemplation for a journey by boat.

Time and preparation: It was the month of October, 2010. We made our journey from Dhaka Sadarghat to Munshigonj. We were six in number. We hired a large boat and made all possible preparation for this journey. The day was nice. The river was calm and quiet.

Description of the journey: We started our journey at 12 noon. The boatman began to row the boat and the boat was moving swiftly. Gentle breeze was blowing. The small waves were beating against it. The ripples of the river made a sweet murmuring sound. While passing through, we enjoyed the beautiful sights on both the sides of the river. At about 3 p.m. our boat touches the ghat of a village market. We got down from the boat and bought a large ‘Hilsha fish’. The boatman cooked it and we had a nice meal. After resting for a while we started our journey again. Then the evening came with all its beauties and glories. The last rays of the setting sun reflected on the calm water that enhanced the beauty or the river more affluently. We got on the roof of the boat and enjoyed the grand sight of the nature. The crimson rays of the setting sun added to the beauty of the green fields charmed us. After seven hours journey we reached Munshigonj ghat at about 6 p.m. Some of our friends were waiting for us at the ghat. They accorded us a hearty reception.

The return journey: We spent a happy time with them. After a lapse of about two hours we again got into the boat and started our journey. Our return journey was equally pleasant. The boat was passing very gently. It was a moon-lit night. All my friends came out of the boat and sat on the roof. The moon’s beam flooded the whole river and filled it with uncommon beauty. Out of joy one of my friends began singing a sweet song. I thought I was in a dream land where only joy and beauty reign. The boatman also began to sing a Bhatiali song.

See also  Paragraph Class 8: A Rainy Day

We also attuned to him. When the night advanced, we entered into the cabin and lie down and fell asleep. The next morning when we woke up it was just daylight. Our boat reached the Sadarghat. We got down from the boat. Thus, our journey by boat to a happy end.

Conclusion: The journey by boat is really a pleasant one. It provides us a lot thrill and pleasure that cannot be described but to be felt only. Such a pleasure of a journey which we undertook will never efface from memory. Really this journey by boat will supply us serene delight for all time to come.

নৌকায় ভ্রমণ

ভূমিকা: নৌকায় ভ্রমণ খুবই আনন্দদায়ক এবং আকর্ষণীয়ও। একই সময়ে এটি একটি শহরে বসবাসকারী মানুষের জন্য একটি রোমাঞ্চকর অ্যাডভেঞ্চারের মতো কিছু। ঢাকার মতো কোলাহলপূর্ণ এবং জনাকীর্ণ শহরে আমি স্বভাবতই আমার কয়েকজন বন্ধুর পরামর্শে নৌকায় ভ্রমণের চিন্তাভাবনা করে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলাম।

সময় এবং প্রস্তুতি: এটি ছিল অক্টোবর, 2010 মাস। আমরা ঢাকা সদরঘাট থেকে মুন্সীগঞ্জের উদ্দেশ্যে যাত্রা করি। সংখ্যায় আমরা ছিলাম ছয়জন। আমরা একটি বড় নৌকা ভাড়া করে এই যাত্রার জন্য সম্ভাব্য সব প্রস্তুতি নিয়েছিলাম। দিনটি চমৎকার ছিল। নদী ছিল শান্ত এবং শান্ত।

যাত্রার বর্ণনাঃ আমরা দুপুর ১২টায় যাত্রা শুরু করি। নৌকার মাঝি নৌকা সারি সারি করতে লাগলেন এবং নৌকা দ্রুত গতিতে চলতে লাগল। মৃদু বাতাস বইছিল। ছোট ছোট ঢেউ এর বিরুদ্ধে আঘাত করছিল। নদীর ঢেউ মিষ্টি গোঙানির শব্দ করে। পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় আমরা নদীর দুই পাড়ের সুন্দর দৃশ্য উপভোগ করলাম। বেলা ৩টার দিকে। আমাদের নৌকা গ্রামের বাজারের ঘাট ছুঁয়েছে। নৌকা থেকে নেমে একটা বড় ‘ইলিশ মাছ’ কিনলাম। নৌকার মাঝি এটি রান্না করে এবং আমরা একটি সুন্দর খাবার খেয়েছিলাম। কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিয়ে আবার যাত্রা শুরু করলাম। তারপর সন্ধ্যা তার সমস্ত সৌন্দর্য এবং মহিমা নিয়ে এল। অস্তগামী সূর্যের শেষ রশ্মি শান্ত জলে প্রতিফলিত হয়েছে যা সৌন্দর্য বা নদীকে আরও সমৃদ্ধ করেছে। আমরা নৌকার ছাদে উঠে প্রকৃতির অপরূপ দৃশ্য উপভোগ করলাম। অস্তগামী সূর্যের লাল রশ্মি সবুজ মাঠের সৌন্দর্যে যোগ করেছে আমাদের মুগ্ধ করেছে। সাত ঘণ্টা যাত্রা শেষে সন্ধ্যা ৬টার দিকে মুন্সিগঞ্জ ঘাটে পৌঁছাই। ঘাটে আমাদের কিছু বন্ধু অপেক্ষা করছিল। তারা আমাদের আন্তরিক অভ্যর্থনা প্রদান করেছে।

প্রত্যাবর্তন যাত্রা: আমরা তাদের সাথে আনন্দের সময় কাটিয়েছি। প্রায় দুই ঘন্টা পর আমরা আবার নৌকায় উঠে যাত্রা শুরু করলাম। আমাদের ফেরার যাত্রাও ছিল সমান আনন্দদায়ক। নৌকা খুব মৃদুভাবে যাচ্ছিল। এটা ছিল চাঁদের আলোর রাত। আমার সব বন্ধুরা নৌকা থেকে নেমে ছাদে বসল। চাঁদের রশ্মি পুরো নদীকে প্লাবিত করে অস্বাভাবিক সৌন্দর্যে পূর্ণ করেছে। আনন্দে আমার এক বন্ধু একটা মিষ্টি গান গাইতে লাগল। আমি ভেবেছিলাম আমি স্বপ্নের দেশে ছিলাম যেখানে কেবল আনন্দ এবং সৌন্দর্যের রাজত্ব। নৌকার মাঝিও ভাটিয়ালী গান গাইতে লাগলেন।

আমরাও তার সাথে মিলিত হয়েছি। রাত বাড়লে আমরা কেবিনে ঢুকে শুয়ে পড়লাম এবং ঘুমিয়ে পড়লাম। পরের দিন সকালে আমরা যখন ঘুম থেকে উঠলাম তখন সবেমাত্র দিনের আলো। আমাদের নৌকা সদরঘাটে পৌঁছে গেল। আমরা নৌকা থেকে নেমে পড়লাম। এভাবে নৌকায় করে আমাদের যাত্রা শুভ শেষ।

উপসংহার: নৌকায় ভ্রমণ সত্যিই আনন্দদায়ক। এটি আমাদের অনেক রোমাঞ্চ এবং আনন্দ দেয় যা বর্ণনা করা যায় না তবে কেবল অনুভব করা যায়। একটি যাত্রার এমন আনন্দ যা আমরা হাতে নিয়েছিলাম তা কখনই স্মৃতি থেকে মুছে যাবে না। সত্যিই নৌকায় এই যাত্রা আমাদের সব সময়ের জন্য নির্মল আনন্দ সরবরাহ করবে।

A Journey by Bus

It was the month of January. My annual examination was over. I had recess for some days. My parents decided to go to my uncle’s house at Jamalpur by bus. Hearing the news my heart danced with joy. It was 10th January 2015.We got into the bus at Mohakhali Bus Terminal in due time.

It was winter. There was pleasant sunshine. The sun started punctually just at 6 a.m. I sat beside a window looking outside through it. The sun was rising with all its splendid beauty. Within an hour of leaving the urban areas our bus began running at a high speed along the road with green fields on both sides. I gazed at the houses, trees and meadows through the window with a cheerful mind. Things came to my vision and vanished in the twinkling of an eye. Everything on either side seemed running swiftly to the opposite direction.

When the bus was running through the forest of Modhupur ‘ghar’ the tall trees with green leaves overhead gave a nice view. I was really charmed at the green panoramic beauties of Nature. It filled my heart with great joy. The bus ran at a stretch without stopping for three hours. It then stopped at a place named Palash. There was a resturant by the roadside. We got down from the bus and had light refreshment there.

After a few minutes the bus began its journey again crossing the green fields on both the sides of the road. This time we saw bare-bodied youngsters tending cattle and grown up people working in the field. Occasionally we saw village women and girls bathing and washing clothes in the ponds. At about 12 noon we reached Jamalpur. Thus our journey came to an end.

The journey by bus was really a pleasant one. I can hardly forget the sweet memory of this journey. The scene of the journey peeps into my mind when I become tired of the monotonus urban life.

বাস ভ্রমণ

তখন জানুয়ারি মাস। আমার বার্ষিক পরীক্ষা শেষ। কয়েকদিন অবসর ছিলাম। আমার বাবা-মা বাসে করে জামালপুরে মামার বাড়ি যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। খবরটা শুনে আমার মন আনন্দে নেচে উঠল। এটা ছিল 10ই জানুয়ারী 2015। আমরা যথাসময়ে মহাখালী বাস টার্মিনালে বাসে উঠলাম।

তখন শীতকাল। মনোরম রোদ ছিল। ঠিক সকাল 6 টায় সূর্য সময়মত শুরু হয়েছিল আমি একটি জানালার পাশে বসে বাইরে তাকাচ্ছিলাম। সূর্য তার অপূর্ব সৌন্দর্য নিয়ে উদিত হচ্ছিল। শহরাঞ্চল ছাড়ার এক ঘণ্টার মধ্যেই আমাদের বাসটি দুপাশে সবুজ মাঠ দিয়ে রাস্তা ধরে তীব্র গতিতে চলতে শুরু করে। আমি প্রফুল্ল মনে জানালা দিয়ে বাড়িঘর, গাছপালা এবং তৃণভূমির দিকে তাকালাম। জিনিসগুলি আমার দৃষ্টিতে এসেছিল এবং চোখের পলকে অদৃশ্য হয়ে গেল। উভয় দিকের সবকিছু বিপরীত দিকে দ্রুত ছুটে চলেছে বলে মনে হচ্ছে।

মধুপুর ‘ঘর’ জঙ্গলের মধ্য দিয়ে বাস যখন চলছিল তখন মাথার ওপরে সবুজ পাতাওয়ালা লম্বা গাছগুলো চমৎকার দৃশ্য দেখাচ্ছিল। আমি প্রকৃতির সবুজ প্যানোরামিক সৌন্দর্যে সত্যিই মুগ্ধ হয়েছিলাম। এটা আমার হৃদয় মহান আনন্দে ভরে. বাসটি তিন ঘন্টা না থামিয়ে প্রসারিতভাবে চলে গেল। এরপর পলাশ নামের একটি স্থানে থামে। রাস্তার পাশে একটা রেস্তোরাঁ ছিল। আমরা বাস থেকে নেমে সেখানে হালকা নাস্তা সেরে নিলাম।

কয়েক মিনিট পর রাস্তার দুপাশের সবুজ মাঠ পেরিয়ে বাসটি আবার যাত্রা শুরু করে। এবার আমরা দেখলাম খালি গায়ের যুবকরা গরু চড়াচ্ছেন এবং বড় মানুষ মাঠে কাজ করছেন। মাঝে মাঝে আমরা গ্রামের মহিলা ও মেয়েদেরকে পুকুরে গোসল করতে ও কাপড় ধোয়া দেখতাম। দুপুর ১২টার দিকে আমরা জামালপুর পৌছালাম। এভাবে আমাদের যাত্রা শেষ হলো।

বাসে যাত্রা সত্যিই আনন্দদায়ক ছিল। এই যাত্রার মধুর স্মৃতি আমি কমই ভুলতে পারি। একঘেয়ে শহুরে জীবনে ক্লান্ত হয়ে পড়লে যাত্রার দৃশ্য আমার মনে উঁকি দেয়।

My Favourite Hobby/My Hobby/Gardening as My Hobby

Introduction : Hobbies are the activities that we do for pleasure at our leisure. More or less everybody has some hobbies like swimming, gardening, fishing, stamp collecting, travelling, reading books, etc. I am a student of class eight. I like to spend my leisure time by reading novels, collecting stamps, gardening etc. Among them my favourite hobby is gardening.

My favourite hobby : As a student I am to work hard for study. So, I need rest and diver¬sion. Gardening provides all these. It makes my leisure time fruitful and enjoyable. I have a garden in front of my reading room. Every afternoon, I work in my garden. I make the soil loose with the spade. I weed out the grass and plant flower plants. I have made a fence around my garden. Every morn¬ing when I go to my garden, my joys know no bounds. A good number of flowers bloom. They charm me much. I like all the flowers but I love the rose most.

Usefulness/Benefits/Importance : The importance of hobby is not less. It refreshes my mind. It makes me forget the troubles and worries of my life. The great persons of the world had their favourite hobbies too. Whenever they became tired for hard work, they returned to their respective hobbies. For example, Einstein played on his violin and Byron took pleasure in fishing. Napoleon loved to play with children and read the dramas of Shakespeare.

Conclusion : Gardening is an exercise. Working in the garden makes me fit and healthy. The garden provides me with fresh air and smell. It refreshes my mind. My garden is not only a source of joy but also a source of income. Sometimes, I sell flowers from my garden and earn my pocket money. I think every student must have a hobby like this.

আমার প্রিয় শখ/আমার শখ/আমার শখ হিসাবে বাগান করা

ভূমিকা: শখ হল সেই কাজগুলো যা আমরা আমাদের অবসর সময়ে আনন্দের জন্য করি। কমবেশি সবারই কিছু না কিছু শখ থাকে যেমন সাঁতার কাটা, বাগান করা, মাছ ধরা, ডাকটিকিট সংগ্রহ, ভ্রমণ, বই পড়া ইত্যাদি। আমি ক্লাস এইটের ছাত্র। আমি অবসর সময় কাটাতে পছন্দ করি উপন্যাস পড়ে, ডাকটিকিট সংগ্রহ, বাগান করা ইত্যাদি। এর মধ্যে বাগান করা আমার প্রিয় শখ।

আমার প্রিয় শখ: একজন ছাত্র হিসাবে আমি পড়াশোনার জন্য কঠোর পরিশ্রম করি। তাই, আমার বিশ্রাম এবং ডাইভারশন দরকার। বাগান এই সব প্রদান করে. এটি আমার অবসর সময়কে ফলপ্রসূ এবং উপভোগ্য করে তোলে। আমার পড়ার ঘরের সামনে একটা বাগান আছে। প্রতিদিন বিকেলে আমি আমার বাগানে কাজ করি। কোদাল দিয়ে মাটি আলগা করি। আমি ঘাস আগাছা এবং ফুলের চারা রোপণ. আমি আমার বাগানের চারপাশে বেড়া তৈরি করেছি। প্রতিদিন সকালে যখন আমি আমার বাগানে যাই, আমার আনন্দের কোন সীমা থাকে না। ভালো সংখ্যক ফুল ফোটে। তারা আমাকে অনেক আকর্ষণ করে। আমি সব ফুল পছন্দ করি কিন্তু আমি সবচেয়ে বেশি ভালোবাসি গোলাপ।

উপযোগিতা/সুবিধা/গুরুত্ব : শখের গুরুত্ব কম নয়। এটা আমার মন রিফ্রেশ. এটা আমাকে আমার জীবনের কষ্ট ও উদ্বেগ ভুলে যায়। বিশ্বের মহান ব্যক্তিদেরও তাদের প্রিয় শখ ছিল। যখনই তারা পরিশ্রমের জন্য ক্লান্ত হয়ে পড়েন, তখনই তারা নিজ নিজ শখে ফিরে আসেন। উদাহরণস্বরূপ, আইনস্টাইন তার বেহালা বাজান এবং বায়রন মাছ ধরার আনন্দ নিয়েছিলেন। নেপোলিয়ন শিশুদের সাথে খেলতে এবং শেক্সপিয়ারের নাটক পড়তে পছন্দ করতেন।

উপসংহার: বাগান করা একটি ব্যায়াম। বাগানে কাজ করা আমাকে ফিট এবং সুস্থ করে তোলে। বাগান আমাকে তাজা বাতাস এবং গন্ধ প্রদান করে। এটা আমার মন রিফ্রেশ. আমার বাগান শুধু আনন্দের উৎস নয় আয়ের উৎসও বটে। মাঝে মাঝে আমার বাগানের ফুল বিক্রি করে পকেটের টাকা রোজগার করি। আমি মনে করি প্রত্যেক ছাত্র-ছাত্রীর এমন শখ থাকা আবশ্যক।

My Favourite Game/My Favourite Sport /The Game I like Most

Introduction : Every sports lover has their favourite games. I like many games like ha-du-du, football, cricket, volleyball etc. But the game which I like most is football. Football is an international game and it is played all over the world. It was first played in England. It was the most popular game in Bangladesh for long years. At present cricket is going to hold the best popularity but Football is still a popular game here. No game is as exciting to me as football.

Rules of the game : The rules of playing football are easy. It is played between two teams. Each team consists of eleven players. Some extra players are kept ready for change when necessary. Each team has a goal-keeper. The result of the game depends on goals. A referee conducts the game. Two linesmen help the referee. The duration of the game is 90 minute. There is an interval after 45 minutes. The players change their sides at the end of the first half.

Popularity : Football is undoubtedly a popular game over the world. The spectators of football cross those of any games. Pele, Maradona, Ronaldo, Messi, Neymar have won the heart of the people of the world. They have become the living legends of the world. Many events of football are held over the world in every year but the FIFA world cup is the best of all. It is held in different countries every four years.

Usefulness/Importance : Playing football is a good exercise and it is very good for health. It teaches obedience to rules and leadership. It develops team spirit, fellow feelings and co-operation among the players. It grows the spirit of leadership too. These are really very necessary for us.

Negative/Bad sides : Football is not always free from negative sides. Too much involvement of the students in the games may affect their studies. Sometimes, supporters are seen to get involved in clashes. Moreover, players may be injured seriously and become disabled.

Conclusion : Football is the most favourite game to me because it is full of thrills and excitements. It thrills not only the players but also the spectators. I am not only a spectator of football but also a football player. I think football playing should be developed in our country.

 

আমার প্রিয় খেলা/আমার প্রিয় খেলা/আমার সবচেয়ে পছন্দের খেলা

ভূমিকা: প্রতিটি ক্রীড়া প্রেমীর তাদের প্রিয় গেম আছে। আমি হা-ডু-ডু, ফুটবল, ক্রিকেট, ভলিবল ইত্যাদির মতো অনেক খেলাই পছন্দ করি। তবে যে খেলাটি আমি সবচেয়ে পছন্দ করি তা হল ফুটবল। ফুটবল একটি আন্তর্জাতিক খেলা এবং এটি সারা বিশ্বে খেলা হয়। প্রথম খেলা হয়েছিল ইংল্যান্ডে। দীর্ঘ বছর ধরে এটি বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা ছিল। বর্তমানে ক্রিকেট সেরা জনপ্রিয়তা ধরে রাখতে চলেছে কিন্তু ফুটবল এখনও এখানে একটি জনপ্রিয় খেলা। কোনো খেলাই আমার কাছে ফুটবলের মতো উত্তেজনাপূর্ণ নয়।

খেলার নিয়ম: ফুটবল খেলার নিয়মগুলো সহজ। দুই দলের মধ্যে খেলা হয়। প্রতিটি দল এগারো জন খেলোয়াড় নিয়ে গঠিত। প্রয়োজনে কিছু অতিরিক্ত খেলোয়াড় পরিবর্তনের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়। প্রতিটি দলে একজন করে গোলরক্ষক থাকে। খেলার ফলাফল গোলের উপর নির্ভর করে। একজন রেফারি খেলা পরিচালনা করেন। দুই লাইনম্যান রেফারিকে সাহায্য করেন। খেলার সময়কাল 90 মিনিট। 45 মিনিট পর একটি বিরতি আছে। প্রথমার্ধের শেষে খেলোয়াড়রা তাদের দল পরিবর্তন করে।

জনপ্রিয়তা: ফুটবল নিঃসন্দেহে বিশ্বজুড়ে একটি জনপ্রিয় খেলা। ফুটবলের দর্শকরা যে কোনো খেলার সেইগুলো অতিক্রম করে। পেলে, ম্যারাডোনা, রোনালদো, মেসি, নেইমাররা বিশ্ববাসীর মন জয় করেছেন। তারা হয়ে উঠেছেন বিশ্বের জীবন্ত কিংবদন্তি। প্রতি বছর বিশ্বজুড়ে ফুটবলের অনেক ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হয় তবে ফিফা বিশ্বকাপ সব থেকে সেরা। এটি প্রতি চার বছর অন্তর বিভিন্ন দেশে অনুষ্ঠিত হয়।

উপযোগিতা/গুরুত্ব: ফুটবল খেলা একটি ভালো ব্যায়াম এবং এটি স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ভালো। এটি নিয়ম এবং নেতৃত্বের আনুগত্য শেখায়। এটি খেলোয়াড়দের মধ্যে দলের মনোভাব, সহকর্মী অনুভূতি এবং সহযোগিতার বিকাশ ঘটায়। এটি নেতৃত্বের চেতনাও বৃদ্ধি করে। এগুলো সত্যিই আমাদের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়।

নেতিবাচক/খারাপ দিক: ফুটবল সবসময় নেতিবাচক দিক থেকে মুক্ত নয়। খেলায় শিক্ষার্থীদের অত্যধিক সম্পৃক্ততা তাদের পড়াশোনার উপর প্রভাব ফেলতে পারে। অনেক সময় সমর্থকদের সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়তে দেখা যায়। তাছাড়া খেলোয়াড়রা গুরুতর আহত হয়ে প্রতিবন্ধী হতে পারে।

উপসংহার: ফুটবল আমার কাছে সবচেয়ে প্রিয় খেলা কারণ এটি রোমাঞ্চ এবং উত্তেজনায় পূর্ণ। এটা শুধু খেলোয়াড়দেরই নয়, দর্শকদেরও রোমাঞ্চিত করে। আমি শুধু ফুটবলের দর্শক নই, একজন ফুটবল খেলোয়াড়ও। আমি মনে করি আমাদের দেশে ফুটবল খেলার উন্নয়ন হওয়া উচিত।

My Aim in Life/My Future plan of life

Introduction : To settle an aim in life is very important for a man. A life without an aim is like a ship without a rudder. A rudderless ship cannot reach a definite goal. In the same way, an aimless man cannot lead his life to a definite direction. So, every one of us should have an aim in life.

My choice : I am a student. It is the best time to fix my aim in life. My father sent me to school with high hopes. As my parents are not so rich they wish to get help from me when I will finish my study. Besides, our country needs technological support for her economic development. Considering all these, I have made up my mind to become an engineer so that I can help both my family and my nation. Our country is technologically backward. If I can be an engineer, I will be able to contribute in updating this sector. Moreover, my parents also want me to be an engineer.

Preparation : To reach my goal, I have to study well from right now. After getting a good result in JSC Exam, I will take science in SSC. I have to try to make good result in Both SSC and HSC Exams to get chance in a famous Engineering University. After obtaining university degree, I want to go abroad for a higher degree. Then I will return to serve my family and my country.

Conclusion : Bangladesh is mainly an agricultural country. Still now, our agriculture depends on the old method of cultivation. Feeding the growing population is a great challenge. To meet the food demands of increasing people, we need to grow more crops. To do this the modern scientific method of cultivation is required. So, after reaching my goal, I will work in this sector. Besides, I will try to make my country industrially developed.

আমার জীবনের লক্ষ্য/জীবনের আমার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা

ভূমিকা: একজন মানুষের জন্য জীবনের একটি লক্ষ্য স্থির করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। লক্ষ্যবিহীন জীবন একটি রডার ছাড়া জাহাজের মতো। একটি রডারহীন জাহাজ একটি নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারে না। একইভাবে, একজন লক্ষ্যহীন মানুষ তার জীবনকে একটি নির্দিষ্ট দিকে নিয়ে যেতে পারে না। সুতরাং, আমাদের প্রত্যেকেরই জীবনের একটি লক্ষ্য থাকা উচিত।

আমার পছন্দ: আমি একজন ছাত্র। জীবনের লক্ষ্য ঠিক করার এটাই সেরা সময়। আমার বাবা আমাকে অনেক আশা নিয়ে স্কুলে পাঠান। আমার বাবা-মা অতটা ধনী না হওয়ায় তারা আমার পড়াশোনা শেষ করার পর আমার কাছ থেকে সাহায্য পেতে চান। এছাড়া তার অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য আমাদের দেশের প্রযুক্তিগত সহায়তা প্রয়োজন। এসব বিবেচনা করে আমি প্রকৌশলী হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি যাতে আমি আমার পরিবার এবং আমার জাতি উভয়কেই সাহায্য করতে পারি। আমাদের দেশ প্রযুক্তিগতভাবে পিছিয়ে। আমি যদি একজন প্রকৌশলী হতে পারি তবে আমি এই সেক্টরের আপডেটে অবদান রাখতে সক্ষম হব। তাছাড়া আমার বাবা-মাও চান আমি ইঞ্জিনিয়ার হই।

প্রস্তুতি: আমার লক্ষ্যে পৌঁছতে আমাকে এখন থেকেই ভালোভাবে পড়াশোনা করতে হবে। জেএসসি পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করার পর এসএসসিতে বিজ্ঞান নেব। একটি বিখ্যাত প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাওয়ার জন্য আমাকে এসএসসি এবং এইচএসসি উভয় পরীক্ষায় ভাল ফলাফল করার চেষ্টা করতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি অর্জনের পর উচ্চতর ডিগ্রির জন্য বিদেশে যেতে চাই। তারপর আমি আমার পরিবার এবং আমার দেশের সেবা করতে ফিরে আসব।

উপসংহারঃ বাংলাদেশ প্রধানত একটি কৃষিপ্রধান দেশ। এখনও, আমাদের কৃষি পুরানো পদ্ধতির চাষাবাদের উপর নির্ভরশীল। ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যাকে খাওয়ানো একটি বড় চ্যালেঞ্জ। ক্রমবর্ধমান মানুষের খাদ্য চাহিদা মেটাতে আমাদের আরও ফসল ফলাতে হবে। এর জন্য প্রয়োজন আধুনিক বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে চাষাবাদ। তাই লক্ষ্যে পৌঁছানোর পর এই সেক্টরে কাজ করব। এছাড়া আমার দেশকে শিল্পোন্নত করার চেষ্টা করব।

My Favourite Teacher/The Teacher I like Most

In my school there are many teachers. Each one teaches us different subjects. Although all of them are fairly good, there is one teacher whom I love and admire the most. Her name is Ms. Lipi. She is the most pleasing personality that I have ever come across. She is an ideal teacher. She has all those qualities which a good teacher is expected to have.

Ms. Lipi is a science teacher. She loves the subject that she teaches and has an in-depth knowledge of it too. She teaches science almost as though it were a hobby class. She does not adopt the old methods of teaching. In fact we even forget at times that she is teaching us from our text books.

Science comes alive in Ms. Lipi’s class. When she teaches, no one talks about anything but the topic that she discusses. She has the ability to draw out attention to the subject and also to sustain it. She conducts various experiments in the class and demonstrates them to make her lessons much easier for us to understand. She does not merely read from the book but gives us a concrete picture of everything, so that we see them before us.

Although her subject is science, Ms. Lipi has a good knowledge of other subjects also. She is well versed with all the current affairs of the world and she often links what we are studying to something that may have been taught somewhere else in the world. She encourages us to ask questions so that we may be able to understand the subject well. She never loses patience with those students who take long to grasp the subject.

Ms. Lipi gives personal attention to all the students. If, by chance, any student tries to play the fool in her class, she is firm and does not allow that to happen. She is a great combination of kindness and strictness. She encourages the students to ask each other and her anything with regard to the subject so that a healthy discussion generates new ideas and increases our curiosity about the subject.

She is very popular, but she is not conceited. She is courteous to her colleagues and the principal of the school. I have never seen her frown or lose her temper. She remains calm even when there is a crisis of any kind. She makes me love going to school. I always look forward to my science period.
She is an ideal teacher and provides the students with a good role model. I love her the most and hope to be like her one day.

আমার প্রিয় শিক্ষক/আমি সবচেয়ে পছন্দের শিক্ষক

আমার স্কুলে অনেক শিক্ষক আছেন। একেকজন একেক বিষয় আমাদের শেখায়। যদিও তাদের সবাই মোটামুটি ভাল, তবে একজন শিক্ষক আছেন যাকে আমি সবচেয়ে বেশি ভালবাসি এবং প্রশংসা করি। তার নাম মিসেস লিপি। তিনি সবচেয়ে আনন্দদায়ক ব্যক্তিত্ব যে আমি কখনও জুড়ে আসা. তিনি একজন আদর্শ শিক্ষক। তার মধ্যে সেই সব গুণ রয়েছে যা একজন ভালো শিক্ষকের প্রত্যাশা করা হয়।

মিসেস লিপি একজন বিজ্ঞান শিক্ষক। তিনি যে বিষয়টি শেখান তা তিনি পছন্দ করেন এবং এটি সম্পর্কে গভীর জ্ঞানও রয়েছে। তিনি বিজ্ঞান পড়ান যেন এটি একটি শখের ক্লাস। তিনি শিক্ষাদানের পুরানো পদ্ধতি গ্রহণ করেন না। আসলে আমরা মাঝে মাঝে ভুলে যাই যে তিনি আমাদের পাঠ্য বই থেকে আমাদের শিক্ষা দিচ্ছেন।

মিস লিপির ক্লাসে বিজ্ঞান জীবন্ত হয়ে আসে। যখন সে শেখায়, তখন সে যে বিষয় নিয়ে আলোচনা করে তা ছাড়া কেউ কিছু বলে না। তিনি বিষয়টির প্রতি মনোযোগ আকর্ষণ করার এবং এটি বজায় রাখার ক্ষমতা রাখেন। তিনি ক্লাসে বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেন এবং তার পাঠগুলি আমাদের বোঝার জন্য আরও সহজ করার জন্য সেগুলি প্রদর্শন করেন। তিনি কেবল বই থেকে পড়েন না তবে আমাদের সবকিছুর একটি কংক্রিট ছবি দেন, যাতে আমরা সেগুলি আমাদের সামনে দেখতে পাই।

যদিও তার বিষয় বিজ্ঞান, মিসেস লিপির অন্যান্য বিষয়েও ভাল জ্ঞান রয়েছে। তিনি বিশ্বের সমস্ত বর্তমান বিষয়গুলির সাথে ভালভাবে পারদর্শী এবং তিনি প্রায়শই আমরা যা অধ্যয়ন করছি তা এমন কিছুর সাথে লিঙ্ক করে যা বিশ্বের অন্য কোথাও শেখানো হয়েছে। তিনি আমাদের প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করতে উত্সাহিত করেন যাতে আমরা বিষয়টি ভালভাবে বুঝতে পারি। তিনি সেই সমস্ত ছাত্রদের সাথে ধৈর্য হারান না যারা বিষয়টি বুঝতে দীর্ঘ সময় নেয়।

মিসেস লিপি সমস্ত ছাত্রদের ব্যক্তিগত মনোযোগ দেন। যদি, দৈবক্রমে, কোন ছাত্র তার ক্লাসে বোকা খেলার চেষ্টা করে, সে দৃঢ় এবং তা হতে দেয় না। তিনি দয়া এবং কঠোরতার একটি মহান সমন্বয়. তিনি শিক্ষার্থীদের একে অপরকে এবং তার বিষয় সম্পর্কে কিছু জিজ্ঞাসা করতে উত্সাহিত করেন যাতে একটি সুস্থ আলোচনা নতুন ধারণা তৈরি করে এবং বিষয় সম্পর্কে আমাদের কৌতূহল বাড়ায়।

তিনি খুব জনপ্রিয়, কিন্তু তিনি অহংকারী নন। তিনি তার সহকর্মীদের এবং স্কুলের অধ্যক্ষের প্রতি বিনয়ী। আমি তার ভ্রুকুটি বা মেজাজ হারাতে দেখিনি। যে কোনো ধরনের সংকট থাকলেও তিনি শান্ত থাকেন। সে আমাকে স্কুলে যেতে ভালোবাসে। আমি সবসময় আমার বিজ্ঞান সময়ের জন্য উন্মুখ। তিনি একজন আদর্শ শিক্ষক এবং ছাত্রদের একটি ভালো রোল মডেল প্রদান করেন। আমি তাকে সবচেয়ে বেশি ভালোবাসি এবং আশা করি একদিন তার মতো হব।

My Childhood Memories/Some Sweet Recollections of My Childhood

Childhood is the period of being a child. My childhood was full of happiness and pleasure. They are now only a source of joy. It is the sweetest period of my life.

I am the eldest son of my parents. Obviously, everybody loved me dearly. I was specially taken care of by every family members. I was very much favorite to my grandmother. She usually would give me sweets and told me fairly tales.

On market day, I would go to the village market with my grandfather. First of all, he would buy me any sweet which I liked. Sometime he took me on his shoulder when I was a mere child. He used to save me from my parents if they would rebuke me.

My first day at school is also fresh in my mind. One fine morning, my father took me to the Headmaster of a nearby primary school. The Headmaster showed me affection and gave me a book of pictures. I felt very happy to have that book. He asked me some questions. I could answer them well. So he was pleased to take me in class one. When I was in the new class, I was a bit nervous first. But soon, I could adjust myself to the new circle.

Besides, my childhood was full of freedom and joy. I would often play with my friends. On summer noon, I would pluck mangoes with them. I had a great fascination for picking green mangoes. I used to swim in the river and jump into it.

During my holidays, when my mother went to sleep at noon, I sometimes stole away and went to the nearby railway line. There together with other children, I would gather pebbles. We also watched how the trains passed. Once the train went out of sight, it would pass onto an unknown world.

My childhood was full of blessings. It was full of happiness and thrills. I enjoyed my childhood days very much. I wish I would have got those days back again!

আমার ছোটবেলার স্মৃতি/আমার শৈশবের কিছু মিষ্টি স্মৃতি

শৈশব হল শিশু হওয়ার সময়কাল। আমার শৈশব ছিল আনন্দ আর আনন্দে ভরপুর। তারা এখন আনন্দের উৎস মাত্র। এটা আমার জীবনের সবচেয়ে মধুর সময়। আমি আমার বাবা-মায়ের বড় ছেলে। স্পষ্টতই, সবাই আমাকে খুব ভালবাসত। আমার পরিবারের প্রত্যেক সদস্যের দ্বারা বিশেষভাবে যত্ন নেওয়া হয়েছিল। আমি আমার দাদির কাছে খুব প্রিয় ছিলাম। তিনি সাধারণত আমাকে মিষ্টি দিতেন এবং আমাকে মোটামুটি গল্প বলতেন।

বাজারের দিনে দাদার সঙ্গে গ্রামের বাজারে যেতাম। প্রথমত, আমার পছন্দের যেকোনো মিষ্টি তিনি আমাকে কিনে দিতেন। আমি যখন নিছক শিশু ছিলাম তখন তিনি আমাকে কাঁধে নিয়েছিলেন। আমার বাবা-মা আমাকে ধমক দিলে তিনি আমাকে তাদের কাছ থেকে বাঁচাতেন।

স্কুলে আমার প্রথম দিনটিও আমার মনে তাজা। একদিন সকালে, আমার বাবা আমাকে কাছের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কাছে নিয়ে গেলেন। প্রধান শিক্ষক আমাকে স্নেহ দেখিয়ে একটি ছবির বই দিলেন। বইটা পেয়ে আমি খুব খুশি হয়েছিলাম। সে আমাকে কিছু প্রশ্ন করেছিল। আমি তাদের ভালো উত্তর দিতে পারতাম। তাই তিনি আমাকে ক্লাস ওয়ানে নিয়ে খুশি হলেন। আমি যখন নতুন ক্লাসে পড়ি, আমি প্রথমে কিছুটা নার্ভাস ছিলাম। কিন্তু শীঘ্রই, আমি নতুন চেনাশোনাতে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারব৷

এছাড়া আমার শৈশব ছিল স্বাধীনতা ও আনন্দে ভরপুর। আমি প্রায়ই আমার বন্ধুদের সাথে খেলতাম। গ্রীষ্মের দুপুরে আমি তাদের সাথে আম তুলতাম। সবুজ আম বাছাইয়ের প্রতি আমার দারুণ মুগ্ধতা ছিল। নদীতে সাঁতার কাটতাম আর তাতে ঝাঁপ দিতাম।

ছুটির দিনে মা দুপুরে ঘুমাতে গেলে মাঝে মাঝে চুরি করে পাশের রেললাইনে যেতাম। সেখানে অন্যান্য শিশুদের সাথে আমি নুড়ি কুড়াতাম। আমরাও দেখতাম কিভাবে ট্রেনগুলো চলে যায়। একবার ট্রেনটি দৃষ্টির বাইরে চলে গেলে, এটি একটি অজানা জগতে চলে যাবে। আমার শৈশব ছিল আশীর্বাদে ভরা। এটি আনন্দ এবং রোমাঞ্চে পূর্ণ ছিল। ছোটবেলার দিনগুলো খুব উপভোগ করেছি। সেই দিনগুলো যদি আবার ফিরে পেতাম!

My Daily Life/A Typical Day of mine/My Daily Routine

Introduction : A student must lead a very disciplined life. A good student is always punctual. To maintain discipline and punctuality, a student needs a daily routine. Like many other students, I have a daily routine. I try to follow my daily routine so that I can do my work smoothly.

My morning activities : I am an early riser. I get up at 5 O’clock. After waking up I brush my teeth and wash my face. Then I take my ablution and say my Fajr prayer. After that, I walk for a while in the cool environment of the morning. I returned home at 6 O’clock and revise my classwork. At half past seven, I go to wash room and take my bath. Then, I eat my breakfast, put on dress and start for school.

At school : My school starts at half past eight and I always try to reach my school in time. I attend three classes at a stress and then get a break. In the class I listen to attentively what my teachers say. As I am a class captain, I am to do some extra duty too.

During tiffin period, I chat with my close friends while taking tiffin and say my Juhar prayer in the school masjid. Then, I attend two more classes.

In the afternoon : My school breaks at 2 pm. I leave my school quickly and go home. Then I wash myself and say my Zuhr prayer. After taking my lunch, I like to have a nap. Saying my Asr prayer, I go to playground to play with my friends. I return home before evening.

In the evening : In the evening, I wash my hand and face, say my Maghrib prayer and sit down to read. I read up to 9 pm. Then, I say my Isha prayer and take my dinner sitting with the other members of my family. At 10:30 pm I go to bed.

My holiday activities : During holiday, I visit my relatives. On Friday, I play with my friends in the morning. At noon I say my ‘Jumma Prayer’ in the local mosque. In the evening, I watch TV.

Conclusion : This daily routine of mine helps me a lot to lead a punctual life. Unless I become sick, I stick to my daily routine.

আমার দৈনন্দিন জীবন/আমার একটি সাধারণ দিন/আমার প্রতিদিনের রুটিন

ভূমিকা: একজন শিক্ষার্থীকে অবশ্যই অত্যন্ত সুশৃঙ্খল জীবনযাপন করতে হবে। একজন ভালো ছাত্র সবসময় সময়নিষ্ঠ। নিয়মানুবর্তিতা এবং সময়ানুবর্তিতা বজায় রাখার জন্য, একজন শিক্ষার্থীর প্রতিদিনের রুটিন প্রয়োজন। অন্যান্য অনেক ছাত্রের মতো আমারও প্রতিদিনের রুটিন আছে। আমি আমার দৈনন্দিন রুটিন অনুসরণ করার চেষ্টা করি যাতে আমি আমার কাজ সুচারুভাবে করতে পারি।

আমার সকালের ক্রিয়াকলাপ: আমি একজন প্রারম্ভিক রাইজার। আমি 5 টায় উঠি। ঘুম থেকে ওঠার পর আমি দাঁত ব্রাশ করি এবং মুখ ধুয়ে ফেলি। তারপর ওযু করে ফজরের নামায পড়ি। এরপর সকালের শীতল পরিবেশে কিছুক্ষণ হাঁটাহাঁটি করি। আমি 6 টায় বাড়ি ফিরেছিলাম এবং আমার ক্লাসওয়ার্ক সংশোধন করেছি। সাড়ে সাতটায় আমি ওয়াশ রুমে গিয়ে গোসল করি। তারপর, আমি আমার প্রাতঃরাশ খাই, পোশাক পরে স্কুলের উদ্দেশ্যে যাত্রা করি।

স্কুলে: আমার স্কুল শুরু হয় সাড়ে আটটায় এবং আমি সবসময় আমার স্কুলে যথাসময়ে পৌঁছানোর চেষ্টা করি। আমি একটি চাপে তিনটি ক্লাসে উপস্থিত হই এবং তারপর একটি বিরতি পাই। ক্লাসে আমি আমার শিক্ষকদের কথা মনোযোগ দিয়ে শুনি। আমি যেহেতু ক্লাস ক্যাপ্টেন তাই আমাকে কিছু অতিরিক্ত দায়িত্বও পালন করতে হয়।

See also  ২০২২ সালের অক্টোবর মাসের কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স [প্রথমপর্ব]

টিফিনের সময়, টিফিন নেওয়ার সময় আমি আমার ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিই এবং স্কুলের মসজিদে আমার জুহরের নামাজ পড়ি। তারপর, আমি আরও দুটি ক্লাসে উপস্থিত হই।

বিকেলে: আমার স্কুল দুপুর ২টায় বিরতি দেয়। আমি তাড়াতাড়ি স্কুল ছেড়ে বাসায় চলে যাই। তারপর গোসল করে যোহরের নামায পড়লাম। আমার দুপুরের খাবার নেওয়ার পর, আমি ঘুমাতে পছন্দ করি। আসরের নামাজ পড়ে বন্ধুদের সাথে খেলার মাঠে যাই। সন্ধ্যার আগে বাড়ি ফিরব।

সন্ধ্যায়: সন্ধ্যায়, আমি আমার হাত এবং মুখ ধুয়ে, আমার মাগরিবের নামাজ পড়ি এবং পড়তে বসি। রাত ৯টা পর্যন্ত পড়ি। তারপর, আমি আমার এশার নামাজ পড়ি এবং আমার পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সাথে বসে রাতের খাবার গ্রহণ করি। রাত 10:30 টায় আমি ঘুমাতে যাই।

আমার ছুটির ক্রিয়াকলাপ: ছুটির সময়, আমি আমার আত্মীয়দের সাথে দেখা করি। শুক্রবার, আমি সকালে আমার বন্ধুদের সাথে খেলি। দুপুরে স্থানীয় মসজিদে জুমার নামাজ পড়ি। সন্ধ্যায় আমি টিভি দেখি।

উপসংহার: আমার এই দৈনন্দিন রুটিন আমাকে সময়ানুবর্তিত জীবন যাপন করতে অনেক সাহায্য করে। আমি অসুস্থ না হলে, আমি আমার প্রতিদিনের রুটিনে লেগে থাকি।

Prize Giving Ceremony of Our School

Introduction : The prize giving ceremony of a school is always interesting. Students wait eagerly for this ceremony. It is often held on annual sports day of a school. Prizes are given among the winners as well as the students who have good records and good result. Teachers and staffs are also found to receive presents on this very day.

Description : The name of our school is Joypur Sorojine High School. The last prize giving ceremony of our school was very thrilling. It was held in our school campus a few days ago. Our school was well decorated before the day of ceremony. A large stage was built at the south corner of our school field. The chief guest was the DC of our district. Our teachers, guardians and leading people of our locality attended the ceremony.

With the recitation from the holy Quran, the function started at 10 a.m. Then we sang our national anthem together. At first, our Headmaster delivered his speech highlighting the annual report of the school. Then the chief guest delivered his valuable speech which was full of moral lessons and suggestions.

Distribution of prizes : Most of the sports events were done on the previous day. Some attractive events such as 100 meter race, high and long jump and pillow changing were left for the day of the ceremony. After completing these events, the prize distribution was started. The honourable chief guest delivered a short speech thanking the winners and consoling the others. Then he gave away prizes among the winners. Our sports teacher helped him in this regard. My joys knew no bounds when I received my prizes from the DC’s hand. I was called three times for prizes. The audience clapped loudly each time the winners were receiving their prizes.

End of the function : The prize giving ceremony came to an end at 5 p.m. After that a cultural programme was held for entertainment.

Conclusion : The annual prize giving ceremony of my school was really exciting. It is one of the most memorable events in my life.

আমাদের স্কুলের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান

ভূমিকা: একটি স্কুলের পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান সবসময়ই আকর্ষণীয় হয়। শিক্ষার্থীরা এই অনুষ্ঠানের জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে। এটি প্রায়ই একটি স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া দিবসে অনুষ্ঠিত হয়। বিজয়ীদের পাশাপাশি ভাল রেকর্ড এবং ভাল ফলাফল করা ছাত্রদের মধ্যে পুরস্কার দেওয়া হয়। শিক্ষক ও কর্মচারীদেরও এই দিনে উপহার পেতে দেখা যায়।

বর্ণনাঃ আমাদের বিদ্যালয়ের নাম জয়পুর সরোজিন উচ্চ বিদ্যালয়। আমাদের স্কুলের শেষ পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানটি ছিল খুবই রোমাঞ্চকর। কয়েকদিন আগে আমাদের স্কুল ক্যাম্পাসে এটি অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানের আগে আমাদের স্কুলকে সুন্দরভাবে সাজানো হয়েছিল। আমাদের স্কুল মাঠের দক্ষিণ কোণে একটি বড় মঞ্চ তৈরি করা হয়েছিল। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন আমাদের জেলার ডিসি মো. অনুষ্ঠানে আমাদের শিক্ষক, অভিভাবক ও এলাকার নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

সকাল ১০টায় পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয় এরপর আমরা একসঙ্গে আমাদের জাতীয় সঙ্গীত গাই। প্রথমে আমাদের প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ের বার্ষিক প্রতিবেদন তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন। এরপর প্রধান অতিথি তার মূল্যবান বক্তব্য প্রদান করেন যা ছিল নৈতিক শিক্ষা ও পরামর্শে পরিপূর্ণ।

পুরষ্কার বিতরণ : আগের দিন বেশিরভাগ ক্রীড়া ইভেন্ট করা হয়েছিল। অনুষ্ঠানের দিনের জন্য কিছু আকর্ষণীয় ইভেন্ট যেমন 100 মিটার দৌড়, উচ্চ এবং দীর্ঘ লাফ এবং বালিশ পরিবর্তন করা হয়েছিল। এসব অনুষ্ঠান শেষ করে শুরু হয় পুরস্কার বিতরণী। সম্মানিত প্রধান অতিথি বিজয়ীদের ধন্যবাদ ও অন্যদের সান্ত্বনা জানিয়ে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন। এরপর তিনি বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন। এ ব্যাপারে তাকে সাহায্য করেছেন আমাদের ক্রীড়া শিক্ষক। ডিসির হাত থেকে পুরস্কার পেয়ে আমার আনন্দের সীমা ছিল না। পুরস্কারের জন্য আমাকে তিনবার ডাকা হয়েছিল। প্রতিবার বিজয়ীরা তাদের পুরষ্কার গ্রহণ করার সময় দর্শকরা জোরে তালি দিয়েছিল।

অনুষ্ঠানের সমাপ্তি: বিকাল ৫টায় পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান শেষ হয়। এরপর মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

উপসংহার: আমার স্কুলের বার্ষিক পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানটি সত্যিই উত্তেজনাপূর্ণ ছিল। এটা আমার জীবনের সবচেয়ে স্মরণীয় ঘটনাগুলোর একটি।

The Season I like Most/The Spring in Bangladesh

Bangladesh is called the country of six seasons. Every season appears before us with the beauty and blessings of nature. I like all the seasons but spring is my most favourite season. Of all seasons, spring is the most charming and delightful. It is called the queen of all seasons. Moreover, spring has no terrible look. Many writers and poets has enriched their writing with the influence of spring.

There is hardly anybody who does not love spring. The hot rays of summer sun are unbearable. All feel uncom-fortable in the hot weather of summer. Heavy sweat comes out from our body. Nobody can work hard. Tanks, ponds, and rivers dry up and people suffer much for this. The sky of the rainy seasons always remains cloudy. It rains all time. Roads become muddy. Lightings and thunderbolt frighten people. Sometimes flood occurs. Poor people cannot go for work and suffer from various problems.

Though autumn is a lovely season, it cannot be compared to spring. Autumn cannot provide with all the facilities that spring can. Late autumn is a sweet season but not sweeter than spring. After autumn comes winter. People suffer from dense fog and biting cold. Nature looks gloomy and dismal. Leafless trees, flowerless garden and sun-less sky make the people cheerless.

Finally spring comes with all its beauties and blessings. Spring is temperate. It is neither cool nor hot. New leaves grow in trees. Nature becomes green and fresh. A gentle breeze blows. Birds sing merrily. Gardens have a lot of flowers. The fragrance of flowers comes and soothes us. The sky is clear. The sun is bright. There is life everywhere. The sky at night is full of innumerous stars.

In spring morning, walking is highly soothing. People feel comfortable in their workplaces. Peace and happiness remain in their minds. My mind dances with joy to see the beauties of nature in spring. I cannot but love spring.

বাংলাদেশে আমার সবচেয়ে পছন্দের ঋতু/বসন্ত

বাংলাদেশকে বলা হয় ছয় ঋতুর দেশ। প্রতিটি ঋতু প্রকৃতির সৌন্দর্য ও আশীর্বাদ নিয়ে আমাদের সামনে হাজির হয়। আমি সব ঋতু পছন্দ করি কিন্তু বসন্ত আমার সবচেয়ে প্রিয় ঋতু। সমস্ত ঋতুর মধ্যে, বসন্ত সবচেয়ে কমনীয় এবং আনন্দদায়ক। একে সব ঋতুর রানী বলা হয়। তাছাড়া বসন্তের কোন ভয়ানক চেহারা নেই। বসন্তের প্রভাবে অনেক লেখক-কবি তাদের লেখাকে সমৃদ্ধ করেছেন।

বসন্ত ভালোবাসে না এমন মানুষ কমই আছে। গ্রীষ্মের সূর্যের উত্তপ্ত রশ্মি অসহ্য। গ্রীষ্মের গরম আবহাওয়ায় সবাই অস্বস্তি বোধ করে। আমাদের শরীর থেকে প্রচন্ড ঘাম বের হয়। কেউ পরিশ্রম করতে পারে না। জলাশয়, পুকুর, নদী শুকিয়ে যাওয়ায় মানুষ এতে চরম ভোগান্তিতে পড়ে। বর্ষার আকাশ সবসময় মেঘলা থাকে। সব সময় বৃষ্টি হয়। রাস্তাগুলো কর্দমাক্ত হয়ে পড়ে। আলো এবং বজ্রপাত মানুষকে ভয় দেখায়। মাঝে মাঝে বন্যা হয়। দরিদ্র মানুষ কাজের জন্য যেতে পারে না এবং বিভিন্ন সমস্যায় ভুগছে।

শরৎ একটি মনোরম ঋতু হলেও এটিকে বসন্তের সাথে তুলনা করা যায় না। শরৎ সব সুবিধা দিতে পারে না যা বসন্ত করতে পারে। দেরী শরৎ একটি মিষ্টি ঋতু কিন্তু বসন্তের চেয়ে মিষ্টি নয়। শরতের পর শীত আসে। ঘন কুয়াশা ও প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় মানুষ ভুগছে। প্রকৃতি বিষণ্ণ এবং হতাশাজনক দেখায়। পাতাহীন গাছ, ফুলবিহীন বাগান আর রোদহীন আকাশ মানুষকে উল্লসিত করে।

অবশেষে বসন্ত আসে তার সকল সৌন্দর্য ও আশীর্বাদ নিয়ে। বসন্ত নাতিশীতোষ্ণ। এটি শীতল বা গরম নয়। গাছে নতুন পাতা গজায়। প্রকৃতি হয়ে ওঠে সবুজ ও সতেজ। মৃদু হাওয়া বইছে। পাখিরা আনন্দে গান গায়। বাগানে প্রচুর ফুল রয়েছে। ফুলের সুবাস এসে আমাদের প্রশান্তি দেয়। আকাশ পরিষ্কার. সূর্য উজ্জ্বল. সর্বত্র জীবন আছে। রাতের আকাশ অসংখ্য তারায় ভরা।

বসন্তের সকালে, হাঁটা অত্যন্ত প্রশান্তিদায়ক। মানুষ তাদের কর্মক্ষেত্রে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে। তাদের মনে শান্তি ও সুখ থাকে। বসন্তে প্রকৃতির অপরূপ সৌন্দর্য দেখে আমার মন আনন্দে নেচে ওঠে। আমি বসন্তকে ভালোবাসতে পারি না।

Rainy Season

Introduction : There are six seasons in Bangladesh. I like all the seasons. But I like rainy season most. Rainy season is my favorite season and perhaps it is favorite to all. Rainy season comes to us with many pleasant things- and beautiful scence and sounds. So I like this season.

Duration: The rainy season is the second season of the year. It comes after summer. It is made up of Ashwar and hraban. In fact rain sets in our country in the middle of June and lasts up to the middle of September.

Reason of my liking : People welcome the rainy season heartily. The season brings heavy rainfall. The sky becomes cloudy. Sometimes we do not see the sun for days together. Sometimes it rains cats and dogs. Canals and tanks are filled with rain water.

Features : The season cools and refreshes all. A journey by boat is very interesting in this season. The roads become muddy and slippery. The rain washes our dirt. It makes our country ever green. It is also a season of fruits. Mango, black-berry, jack fruit, lichies etc. have buds on them.

Usefulness : The rainy season is very useful to us. Bangladesh is mainly an agricultural country. Our agriculture mainly depends on this season. Green leaves grow in trees. The cultivation of our country makes the paddy fields ready. Jute plants grow rapidly.

Conclusion : The rainy season is the most important and useful season in our country. It is the best of all the season in Bangladesh. We always welcome this season and enjoy its beauty.

বর্ষাকাল

ভূমিকা: বাংলাদেশে ছয়টি ঋতু রয়েছে। আমি সব ঋতু পছন্দ. তবে বর্ষাকাল আমার সবচেয়ে ভালো লাগে। বর্ষাকাল আমার প্রিয় ঋতু এবং সম্ভবত এটি সবার কাছে প্রিয়। বর্ষাকাল আমাদের কাছে অনেক মনোরম জিনিস নিয়ে আসে- এবং সুন্দর ঘ্রাণ এবং শব্দ। তাই আমি এই ঋতু পছন্দ.

সময়কাল: বর্ষাকাল বছরের দ্বিতীয় ঋতু। এটি গ্রীষ্মের পরে আসে। এটি আশ্বর ও হরবনের সমন্বয়ে গঠিত। আসলে আমাদের দেশে জুনের মাঝামাঝি বৃষ্টিপাত হয় এবং সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি পর্যন্ত স্থায়ী হয়।

আমার ভালো লাগার কারণ: মানুষ বর্ষাকে স্বাগত জানায় মনেপ্রাণে। ঋতু প্রবল বৃষ্টি নিয়ে আসে। আকাশ মেঘলা হয়ে যায়। কখনও কখনও আমরা একসাথে কয়েক দিন সূর্য দেখতে পাই না। কখনও কখনও এটি বিড়াল এবং কুকুর বৃষ্টি. বর্ষার পানিতে খাল-বিলগুলো ভরাট হয়ে গেছে।

বৈশিষ্ট্য: ঋতু শীতল এবং সব সতেজ. এই মৌসুমে নৌকায় ভ্রমণ খুবই আকর্ষণীয়। রাস্তাগুলো কর্দমাক্ত ও পিচ্ছিল হয়ে যায়। বৃষ্টি আমাদের ময়লা ধুয়ে দেয়। এটি আমাদের দেশকে চির সবুজ করে তোলে। এটি ফলের মৌসুমও। আম, ব্ল্যাক-বেরি, কাঁঠাল ফল, লিচি ইত্যাদিতে কুঁড়ি থাকে।

উপযোগিতা: বর্ষাকাল আমাদের জন্য খুবই উপকারী। বাংলাদেশ মূলত একটি কৃষিপ্রধান দেশ। আমাদের কৃষি প্রধানত এই ঋতুর উপর নির্ভরশীল। গাছে সবুজ পাতা গজায়। আমাদের দেশের চাষাবাদ ধানক্ষেতকে প্রস্তুত করে তোলে। পাট গাছ দ্রুত বৃদ্ধি পায়।

উপসংহার: বর্ষাকাল আমাদের দেশে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং দরকারী ঋতু। এটি বাংলাদেশের সব মৌসুমের সেরা। আমরা সবসময় এই ঋতুকে স্বাগত জানাই এবং এর সৌন্দর্য উপভোগ করি।

Floods in Bangladesh

Introduction : Flood is one of the most common natural calamities in Bangladesh. In the rainy season, sometimes heavy rainfall overflows the bank of river and submerges many low lying area of Bangladesh. This is called flood. Again, water from the upstream may cause flood. It occurs almost every year in Bangladesh. It causes great havocs to millions of people.

Recent floods : Though floods occur every year in Bangladesh, sometimes it takes terrible shape. The recent serious floods occurred in 1985, 1988, 1991, 1996 and 1999. These terrible floods affected millions of people and engulfed most areas of the country and the miseries of the people knew no bounds.

Description/Bad effects of floods : The damages caused by flood are beyond description. It destroys crops, houses and many other valuable things. Cattle die because they do not get food. They lose their shed during flood. People suffer very much. Railway lines and roads go under water. Transportation system is hampered seriously. The most dangerous things are different kinds of diseases which attack the affected people. Diarrhoea, cholera, typhoid, and dysentery are the main diseases during flood. Sometimes, mass death occurs for these diseases.

Good effects of flood : Flood has one good effect. It makes soil fertile by supplying alluvial soil. Crops grow in plenty next year after the flood. Another good side of flood is volunteer services of the students and many charitable organizations. The members of the organizations collect foods, cloths, medicine and distribute them among the affected people.

Conclusion : It is time we took preventive steps to reduce the loss of flood. More and more shelters for the affected people should be built. The concerned authority should develop better system of irrigation, transportation and embankments to control flood.

বাংলাদেশে বন্যা

ভূমিকা: বন্যা বাংলাদেশের অন্যতম সাধারণ প্রাকৃতিক দুর্যোগ। বর্ষাকালে, কখনও কখনও ভারী বর্ষণে নদীর তীর উপচে পড়ে এবং বাংলাদেশের অনেক নিচু এলাকা তলিয়ে যায়। একে বন্যা বলে। আবার উজান থেকে আসা পানি বন্যার কারণ হতে পারে। বাংলাদেশে প্রায় প্রতি বছরই এটি হয়ে থাকে। এটি লক্ষ লক্ষ মানুষের জন্য বড় বিপর্যয় ঘটায়।

সাম্প্রতিক বন্যাঃ বাংলাদেশে প্রতিবছর বন্যা দেখা দিলেও মাঝে মাঝে তা ভয়াবহ আকার ধারণ করে। সাম্প্রতিক ভয়াবহ বন্যা 1985, 1988, 1991, 1996 এবং 1999 সালে ঘটেছিল। এই ভয়ানক বন্যা লক্ষ লক্ষ মানুষকে প্রভাবিত করেছিল এবং দেশের বেশিরভাগ এলাকাকে গ্রাস করেছিল এবং মানুষের দুর্দশার কোন সীমা ছিল না।

বন্যার বর্ণনা/খারাপ প্রভাব : বন্যার কারণে যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা বর্ণনার বাইরে। এতে ফসল, ঘরবাড়ি এবং অন্যান্য অনেক মূল্যবান জিনিস নষ্ট হয়। খাবার না পেয়ে গবাদি পশু মারা যাচ্ছে। বন্যার সময় তারা ঘর হারিয়ে ফেলে। মানুষ খুব কষ্ট পায়। রেললাইন ও রাস্তাঘাট পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে পরিবহন ব্যবস্থা মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। সবচেয়ে বিপজ্জনক জিনিসগুলি বিভিন্ন ধরণের রোগ যা আক্রান্ত ব্যক্তিদের আক্রমণ করে। বন্যার সময় ডায়রিয়া, কলেরা, টাইফয়েড এবং আমাশয় প্রধান রোগ। কখনও কখনও, এই রোগের জন্য গণ মৃত্যু ঘটে।

বন্যার ভালো প্রভাব: বন্যার একটি ভালো প্রভাব রয়েছে। এটি পলিমাটি সরবরাহ করে মাটিকে উর্বর করে তোলে। বন্যার পর পরের বছর প্রচুর ফসল হয়। বন্যার আরেকটি ভালো দিক হল ছাত্রদের স্বেচ্ছাসেবক সেবা এবং অনেক দাতব্য সংস্থা। সংগঠনের সদস্যরা খাদ্য, কাপড়, ওষুধ সংগ্রহ করে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের মাঝে বিতরণ করেন।

উপসংহার: বন্যার ক্ষতি কমাতে প্রতিরোধমূলক পদক্ষেপ নেওয়ার এখনই সময়। ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য আরও বেশি করে আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ করতে হবে। বন্যা নিয়ন্ত্রণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উচিত সেচ, পরিবহন ও বাঁধের উন্নত ব্যবস্থা গড়ে তোলা।

The Rivers of Bangladesh

Introduction : Bangladesh is called the country of rivers. So many rivers spread over Bangladesh like the nets. The main rivers are the Padma, the Meghna, the Jamuna and the Brah¬maputra. Besides these, there are a lot of small rivers throughout the country.

Their Importance : The rivers of Bangladesh are blessings of nature. They are the greatest source of wealth. The economy of Bangladesh is connected with her river system. As Bangladesh is an agricul¬tural country, her agricultural prosperity largely depends on the rivers. These rivers have made her soil fertile by providing silt during flood. The rivers play a great role in transportation system. Boats, launch, steamers, and ferries carry goods and passengers and keep contributions to transportation.

Rivers have great contribution to trade and business. Most of the big cities of our country are on the bank of the rivers. Many important river ports have been constructed on the bank of the rivers. Our capital city Dhaka stands on the Burigonga. Many mills and factories are also on the rivers and the products can easily be transported to various places and markets through the rivers.

Fishes abound in the rivers of Bangladesh. The fishermen catch fish and sell them in the market. A large quantity of fish is exported to foreign countries every year. It contributes to earn much foreign currency.

Their influence on man : The rivers have great influence on man. They inspire our poets, writers and artists. Many writers of Bangladesh have composed poems, articles, essays and prose on it. Our mind moves with unlimited joy when we see the natural beauties of the sides of the rivers. The boats as well as the different kinds of water vehicles largely charm us.

Conclusion : Rivers have some negative aspects too. Sometimes they cause serious floods which damage agricultural crops, wash away houses, cattle and properties. Sometimes, launches sink into the rivers and many passengers die unfortunately. Apart from these, rivers are blessings for us.

বাংলাদেশের নদী

ভূমিকা: বাংলাদেশকে বলা হয় নদীর দেশ। এতগুলো নদী জালের মতো ছড়িয়ে আছে বাংলাদেশে। প্রধান নদীগুলো হলো পদ্মা, মেঘনা, যমুনা ও ব্রহ্মপুত্র। এগুলো ছাড়াও সারাদেশে ছোট-বড় অসংখ্য নদী রয়েছে।

এগুলোর গুরুত্বঃ বাংলাদেশের নদীগুলো প্রকৃতির আশীর্বাদ। তারা সম্পদের সবচেয়ে বড় উৎস। বাংলাদেশের অর্থনীতি তার নদী ব্যবস্থার সাথে যুক্ত। বাংলাদেশ একটি কৃষিপ্রধান দেশ হওয়ায় তার কৃষি সমৃদ্ধি অনেকাংশে নদীর ওপর নির্ভরশীল। এসব নদী বন্যার সময় পলি সরবরাহ করে তার মাটিকে উর্বর করেছে। নদ-নদী পরিবহন ব্যবস্থায় বিরাট ভূমিকা পালন করে। নৌকা, লঞ্চ, স্টিমার এবং ফেরিগুলি পণ্য ও যাত্রী বহন করে এবং পরিবহনে অবদান রাখে।

ব্যবসা-বাণিজ্যে নদীগুলোর বিরাট অবদান রয়েছে। আমাদের দেশের বড় শহরগুলোর অধিকাংশই নদীর তীরে। নদীর তীরে অনেক গুরুত্বপূর্ণ নদীবন্দর নির্মাণ করা হয়েছে। আমাদের রাজধানী ঢাকা বুড়িগঙ্গার উপর দাঁড়িয়ে আছে। অনেক কল-কারখানাও নদীতে রয়েছে এবং পণ্য সহজেই নদী দিয়ে বিভিন্ন স্থানে ও বাজারে পরিবহন করা যায়।

বাংলাদেশের নদীগুলোতে প্রচুর মাছ পাওয়া যায়। জেলেরা মাছ ধরে বাজারে বিক্রি করে। প্রতিবছর বিপুল পরিমাণ মাছ বিদেশে রপ্তানি হয়। এটি প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে অবদান রাখে।

মানুষের উপর তাদের প্রভাব: নদী মানুষের উপর অনেক প্রভাব ফেলে। তারা আমাদের কবি, লেখক ও শিল্পীদের অনুপ্রাণিত করে। বাংলাদেশের অনেক লেখক এর ওপর কবিতা, প্রবন্ধ, প্রবন্ধ ও গদ্য রচনা করেছেন। নদীর ধারের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য দেখলে আমাদের মন সীমাহীন আনন্দে আন্দোলিত হয়। নৌকার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের জলযান আমাদের মুগ্ধ করে।

উপসংহার: নদীর কিছু নেতিবাচক দিকও আছে। কখনও কখনও তারা মারাত্মক বন্যা ঘটায় যা কৃষি ফসলের ক্ষতি করে, ঘরবাড়ি, গবাদি পশু এবং সম্পত্তি ভেসে যায়। অনেক সময় লঞ্চ নদীতে তলিয়ে যায় এবং অনেক যাত্রী দুর্ভাগ্যজনকভাবে মারা যায়। এগুলো ছাড়াও নদী আমাদের জন্য আশীর্বাদ।

The Fruits of Bangladesh

Fruits are delicious food. Various kinds of fruits grow in Bangladesh. There are many kinds of fruits in our country. Among them, Jack fruit, mango, orange, pineable, banana, coconut, water lemons, guavas etc. are the main fruits of Bangladesh.

They are remarkable fruits in our country. The jackfruit is the largest of all fruits. It is our national fruit. It is found during the summer. It is very sweet and tasty.

The mango is the most popurlar fruit in Bangladesh. It is the king of fruits. It is very sweet and tastful. It grows all over the country. But mangoes of Rajshahi are best. The orange is another nutritious fruit. It gives us delicious juice. It is round in shape.

The pineapple is a juicy fruit. It grows plenty in Comilla and sylhet. The best kind of it grows in Srimangal and Mdhupur of Tangail. The banana is the most common fruit of Bangladesh. Everybody likes it. It is soft and tasty. The sabri and sagor are the best. Some green bananas are also used for cooking.
The conut is another well known fruit in our country. It is a nutritious and source of oil.

There are many other fruits such as black berries, plums, wood apples, lichi, dates etc. They are also very popular in our country. There are some fruits which taste sour. Of these lemon, amra, kamranga, batabi, star apple are notable.

বাংলাদেশের ফল

ফল সুস্বাদু খাবার। বাংলাদেশে বিভিন্ন ধরনের ফল হয়। আমাদের দেশে অনেক ধরনের ফল রয়েছে। এর মধ্যে জ্যাক ফল, আম, কমলা, আনারস, কলা, নারকেল, পানি লেবু, পেয়ারা ইত্যাদি বাংলাদেশের প্রধান ফল।

এগুলো আমাদের দেশে উল্লেখযোগ্য ফল। সব ফলের মধ্যে কাঁঠাল সবচেয়ে বড়। এটি আমাদের জাতীয় ফল। এটি গ্রীষ্মকালে পাওয়া যায়। এটি খুব মিষ্টি এবং সুস্বাদু।

আম বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় ফল। এটি ফলের রাজা। এটি খুব মিষ্টি এবং সুস্বাদু। এটি সারা দেশে বৃদ্ধি পায়। তবে রাজশাহীর আম সবচেয়ে ভালো। কমলা আরেকটি পুষ্টিকর ফল। এটি আমাদের সুস্বাদু রস দেয়। এটি আকারে গোলাকার।

আনারস একটি রসালো ফল। এটি কুমিল্লা ও সিলেটে প্রচুর জন্মে। টাঙ্গাইলের শ্রীমঙ্গল ও মধুপুরে সবচেয়ে ভালো ফল হয়। কলা বাংলাদেশের সবচেয়ে সাধারণ ফল। সবাই এটা পছন্দ. এটি নরম এবং সুস্বাদু। সবরি ও সাগর শ্রেষ্ঠ। কিছু সবুজ কলা রান্নার জন্যও ব্যবহার করা হয়। নারকেল আমাদের দেশে আরেকটি সুপরিচিত ফল। এটি একটি পুষ্টিকর এবং তেলের উৎস।

আরও অনেক ফল আছে যেমন কালো বেরি, বরই, কাঠের আপেল, লিচু, খেজুর ইত্যাদি। এগুলোও আমাদের দেশে খুবই জনপ্রিয়। কিছু ফল আছে যার স্বাদ টক। এর মধ্যে লেবু, আমড়া, কামরাঙ্গা, বাতাবি, স্টার আপেল উল্লেখযোগ্য।

A Village Market

Introduction : A village Market is very common and necessary place in a village. It is a place where the villagers come to buy and sell things. It is actually a buying and selling center for the villagers.

Sitting place : Generally, a village market sits at a place which is easily reachable to the villagers. So, the junction of roads, the sides of a river or a canal, place under a banyan tree or any large tree are suitable for a village market.

Kinds : There are two kinds of village market. They are daily market and weekly market. Daily market is called Bazar. Some daily markets sit both in the morning and in the evening. Again, some daily markets sit only in the evening. Weekly market is called ‘Hat’. It sits once or twice a week.

Parts/Sections : Most of the village markets have three parts. They are open shops temporary shops and permanent shops. In the open shops the sellers sit in rows. Fish, milk, fruits, betel leaves, betel nut, vegetables etc. are sold there. In the temporary shops oil, rice, salt, pepper etc. are sold. Some grocers, tailors, doctors, potters etc. sit in the permanent shops.

Importance/Advantages : A village market is very important for the villagers. Most of the daily necessaries are found in a village market. It is the meeting place of the villagers. There are some tea-stalls in a village market. The villagers exchange their views and opinions while taking tea. Another advantage of a village market is that the villagers are economically benefited by it. Moreover, the villagers cannot go to distant city market every day to buy or sell their common products. The village market meets their daily needs.

Disadvantages/Demerits : There are some disadvantages of a village market. It is a noisy and unhealthy place. For heavy crowd, some people’s pockets might be picked. Sometimes, odour from the market irritates the people. Especially the fish market is really a dirty place. Moreover, high bargaining continues between the sellers and the buyers. Buyers may be cheated in this case.

Conclusion : Despite having some negative aspects, a village market is important for the villagers. It gives a great service to the rural people. It can be considered as the backbone of the rural economy.

একটি গ্রামের বাজার

ভূমিকা: একটি গ্রামের বাজার একটি গ্রামে খুব সাধারণ এবং প্রয়োজনীয় জায়গা। এটি এমন একটি জায়গা যেখানে গ্রামবাসীরা জিনিস কিনতে এবং বিক্রি করতে আসে। এটি আসলে গ্রামবাসীদের জন্য একটি ক্রয়-বিক্রয় কেন্দ্র।

বসার জায়গা: সাধারণত, একটি গ্রামের বাজার এমন জায়গায় বসে যা গ্রামবাসীদের কাছে সহজেই পৌঁছানো যায়। তাই, রাস্তার মোড়, নদী বা খালের পাশ, বটগাছ বা বড় গাছের নিচে জায়গা গ্রামের বাজারের জন্য উপযুক্ত।

প্রকার: গ্রামের বাজার দুই প্রকার। এগুলো দৈনিক বাজার এবং সাপ্তাহিক বাজার। দৈনিক বাজারকে বলা হয় বাজার। কিছু দৈনিক বাজার সকাল এবং সন্ধ্যা উভয় সময়ে বসে। আবার কোনো কোনো দৈনিকের বাজার বসে শুধু সন্ধ্যায়। সাপ্তাহিক বাজারকে বলা হয় ‘হাট’। এটি সপ্তাহে একবার বা দুবার বসে।

পার্টস/সেকশন: বেশিরভাগ গ্রামের বাজারের তিনটি অংশ থাকে। এগুলো খোলা দোকান অস্থায়ী দোকান এবং স্থায়ী দোকান। খোলা দোকানগুলোতে সারিবদ্ধভাবে বসে বিক্রেতারা। মাছ, দুধ, ফল, পান, সুপারি, সবজি ইত্যাদি বিক্রি হয় সেখানে। অস্থায়ী দোকানে তেল, চাল, লবণ, গোলমরিচ ইত্যাদি বিক্রি হয়। কিছু মুদি, দর্জি, ডাক্তার, কুমোর ইত্যাদি স্থায়ী দোকানে বসে।

গুরুত্ব/সুবিধা: গ্রামের বাজার গ্রামবাসীদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের বেশির ভাগই পাওয়া যায় গ্রামের বাজারে। এটি গ্রামবাসীদের মিলনস্থল। গ্রামের বাজারে কিছু চায়ের স্টল আছে। চা খাওয়ার সময় গ্রামবাসী তাদের মত বিনিময় করে। গ্রামের বাজারের আরেকটি সুবিধা হল গ্রামবাসীরা এতে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হয়। তাছাড়া গ্রামবাসী তাদের সাধারণ পণ্য ক্রয়-বিক্রয়ের জন্য প্রতিদিন দূরবর্তী শহরের বাজারে যেতে পারে না। গ্রামের বাজার তাদের দৈনন্দিন চাহিদা পূরণ করে।

অসুবিধা/অসুবিধা: গ্রামের বাজারের কিছু অসুবিধা রয়েছে। এটি একটি কোলাহলপূর্ণ এবং অস্বাস্থ্যকর জায়গা। ভারী ভিড়ের জন্য, কিছু লোকের পকেট বাছাই করা হতে পারে। কখনো কখনো বাজারের দুর্গন্ধ মানুষকে বিরক্ত করে। বিশেষ করে মাছের বাজার সত্যিই নোংরা জায়গা। তাছাড়া বিক্রেতা ও ক্রেতাদের মধ্যে চলছে উচ্চ দর কষাকষি। এক্ষেত্রে ক্রেতারা প্রতারিত হতে পারেন।

উপসংহার: কিছু নেতিবাচক দিক থাকা সত্ত্বেও, গ্রামের বাজার গ্রামবাসীদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এটি গ্রামীণ জনগণকে একটি দুর্দান্ত পরিষেবা দেয়। এটাকে গ্রামীণ অর্থনীতির মেরুদণ্ড হিসেবে বিবেচনা করা যেতে পারে।

A Village Fair

Introduction: A village fair is a large gathering of men, women and children on a particular occasion. It is a hilarious annual meeting place of the village people. It is like a mirror that reflects the emblem of rural life. It brings a chance in the monotonous life of the villagers. People of all ages specially the children eagerly wait for this happy occasion.

Place and occasion: A village fair is usually held once or twice a year either on the first or the last day of Bengali year. It is also held on the occasion of some religious or national festival. It is generally held in the central part of the village or on the bank of a river or in front of a Temple or a Dargah or under the spreading big banyan tree.

Things are bought and sold: A village fair is an exhibition of the village products. The people of different professions in the village such as a patterns, carpenters, blacksmiths, weavers etc. bring their own hand made articles for sell and display. There is a great assemblage of fancy goods such as toys, whistles, combs, hair pins, cheap ornaments, cosmetics, looking glasses, earthen wares, balloons etc. in the fair. Different kinds of household goods and decorated and painted articles of bamboo, wood and cane are also brought for sale. Various kinds of sweet meats and seasonal fruits are also available here. Everybody buys things after his own choice.

Attractions: A village fair is a place of joy and pleasure for the villagers. As such some special and attractive arrangements are made in the fair to attract and amuse the visitors. Circus, Magic show, Jatra and Jarigan are the chief attractions of them in the fair. Merry-go-rounds, puppet shows, mock fights, the lotteries etc. are some other special attractions of the fair.

Demerits: The village fair has some drawbacks too. As it lacks in arrangements for proper sanitation, it sometimes leads to the outbreak of epidemics. The gambling parties in the village fair tell upon the morality of the village people, besides subjecting them to economic loss. Moreover, undesirable people and criminals visit the fair and commit various kinds of mischief.

Conclusion: Rural people are deprived of different kinds of amenities of life enjoyed by the urban people. So, a village fair appears before the villagers with all opportunities for joys and pleasures. It gives them much relief to their toilsome life. On the whole the village fair has not outlived their utility even now. It is a part or our cultural life.

গ্রামের মেলা

ভূমিকা: একটি গ্রামের মেলা হল একটি বিশেষ উপলক্ষে পুরুষ, মহিলা এবং শিশুদের একটি বিশাল সমাবেশ। এটি গ্রামের মানুষের একটি হাসিখুশি বার্ষিক মিলনস্থল। এটি একটি আয়নার মতো যা গ্রামীণ জীবনের প্রতীক প্রতিফলিত করে। এটি গ্রামবাসীদের একঘেয়ে জীবনে একটি সুযোগ নিয়ে আসে। সব বয়সের মানুষ বিশেষ করে শিশুরা অধীর আগ্রহে এই আনন্দের উপলক্ষের জন্য অপেক্ষা করে।

স্থান ও উপলক্ষ: একটি গ্রামীণ মেলা সাধারণত বছরে একবার বা দুইবার হয় বাংলা বছরের প্রথম বা শেষ দিনে অনুষ্ঠিত হয়। কোনো কোনো ধর্মীয় বা জাতীয় উৎসব উপলক্ষেও এটি অনুষ্ঠিত হয়। এটি সাধারণত গ্রামের কেন্দ্রীয় অংশে বা নদীর তীরে বা মন্দির বা দরগার সামনে বা ছড়িয়ে থাকা বড় বটগাছের নীচে অনুষ্ঠিত হয়।

জিনিস কেনা-বেচা: গ্রামীণ মেলা হল গ্রামের পণ্যের প্রদর্শনী। গ্রামের বিভিন্ন পেশার মানুষ যেমন একটি প্যাটার্ন, ছুতোর, কামার, তাঁতি প্রভৃতি নিজেদের হাতে তৈরি জিনিসপত্র বিক্রি ও প্রদর্শনের জন্য নিয়ে আসে। মেলায় রয়েছে অভিনব জিনিসপত্র যেমন খেলনা, বাঁশি, চিরুনি, চুলের পিন, সস্তা অলঙ্কার, প্রসাধনী, লুকিং গ্লাস, মাটির জিনিসপত্র, বেলুন ইত্যাদি। বাঁশ, কাঠ ও বেতের বিভিন্ন ধরনের গৃহস্থালির সামগ্রী এবং সাজানো ও আঁকা জিনিসপত্রও বিক্রির জন্য আনা হয়। বিভিন্ন ধরনের মিষ্টি মাংস ও মৌসুমি ফলও পাওয়া যায় এখানে। সবাই নিজের পছন্দের জিনিস কিনে।

আকর্ষণ: গ্রামীণ মেলা গ্রামবাসীদের জন্য আনন্দ ও আনন্দের জায়গা। তাই মেলায় দর্শনার্থীদের আকৃষ্ট ও বিনোদনের জন্য কিছু বিশেষ ও আকর্ষণীয় আয়োজন করা হয়। সার্কাস, ম্যাজিক শো, যাত্রা ও জারিগান মেলার প্রধান আকর্ষণ। মেরি-গো-রাউন্ড, পাপেট শো, মক ফাইট, লটারি ইত্যাদি মেলার আরও কিছু বিশেষ আকর্ষণ।

ক্ষতি: গ্রামের মেলারও কিছু অসুবিধা আছে। যেহেতু এটি যথাযথ স্যানিটেশনের ব্যবস্থার অভাব রয়েছে, এটি কখনও কখনও মহামারীর প্রাদুর্ভাবের দিকে পরিচালিত করে। গ্রামের মেলায় জুয়ার দলগুলো গ্রামের মানুষের অর্থনৈতিক ক্ষতির পাশাপাশি তাদের নৈতিকতার কথা বলে। তাছাড়া অবাঞ্ছিত ব্যক্তি ও অপরাধীরা মেলায় এসে নানা ধরনের অপকর্ম করে থাকে।

উপসংহার: গ্রামীণ জনগণ শহুরে মানুষের জীবনযাপনের বিভিন্ন ধরনের সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত। তাই, আনন্দ ও আনন্দের সমস্ত সুযোগ নিয়ে গ্রামবাসীদের সামনে হাজির হয় একটি গ্রামের মেলা। এটা তাদের পরিশ্রমী জীবনে অনেক স্বস্তি দেয়। সর্বোপরি গ্রামীণ মেলা এখনও তাদের উপযোগিতা ছাড়িয়ে যায়নি। এটা একটা অংশ বা আমাদের সাংস্কৃতিক জীবন।

পিডিএফ পেতে এখানে ক্লিক করুন-

Facebook
Twitter
LinkedIn

Related Posts

Related Posts

Welcome Back!

Login to your account below

Create New Account!

Fill the forms bellow to register

Retrieve your password

Please enter your username or email address to reset your password.

x

Add New Playlist

Are you sure want to unlock this post?
Unlock left : 0
Are you sure want to cancel subscription?